লম্বা হচ্ছে রেমিটেন্স যোদ্ধাদের মৃ'ত্যুর মিছিল, অর্থাভাবে জীবিতের পরিবার

সৌদি আরবে মৃ'তের মধ্যে বাংলাদেশি একজন নারী সহ ১ শত ৪০ জন। রিয়াদ অঞ্চলে ৩৮ জন এবং জেদ্দা অঞ্চলে ১ শত ২ জন বাংলাদেশির মৃ'ত্যু খবর দিয়েছে কতৃপক্ষ। করো'নার পাশাপাশি স্বাভাবিক এবং হৃদরোগে আ'ক্রান্ত হয়েও মা'রা যাচ্ছেন অনেক বাংলাদেশী রেমিটেন্স যোদ্ধা। বিশেষ করে বেকার, কর্মহীন হয়ে পড়া এবং বেতন না পাওয়া বাংলাদেশীরা দুশ্চিন্তায় সময় অ'তিবাহিত করছে। দেশে অনেকের পরিবার অর্থাভাবে চরম ক'ষ্টে দিনাতিপাত করলেও বিদেশি পরিবার বলে সকল সাহায্য সহযোগিতা থেকে বঞ্চিত রয়েছে। তাই, দুঃচিন্তা ও মানসিক চাপেও মা'রা যাচ্ছেন অনেকে।

সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ড. মুহাম্ম'দ আল আবদেল আলী ২১ মে জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সৌদি আরবে নতুন করে করো'নায় আ'ক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫ শত ৩২জন। এই নিয়ে মোট আ'ক্রান্তের সংখ্যা ৬৫ হাজার ৭৭জন। এদের মধ্যে ২ শত ৮১ জনের অবস্থা সংকটাপন্ন। এই পর্যন্ত করো'নায় আ'ক্রান্ত মৃ'ত্যের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ শত ৫১ জনে। অন্যদিকে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৫ শত ৬২জন, দেশটিতে সর্বমোট সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ৩৬ হাজার ৪০জন।

এদিকে তৃতীয় পর্যায়ে করো'না টেস্ট শুরু করেছে সৌদি কতৃপক্ষ। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, নির্দিষ্ট হাসপাতাল, পাড়া মহল্লার পর এবার যানবাহনের আরোহীদের করো'না টেস্ট করা হবে। এছাড়া শহরের প্রবেশদ্বারে বসানো হচ্ছে ভাই'রাস নিরোধক ফট'ক। তাদের বিশ্বা'স এতে করে করো'না সংক্রমণের লাগাম টেনে ধ'রা সম্ভব হবে।

উল্লেখ্য, করো'নাভাই'রাসের সংক্রমণরোধে সম্ভব সকল আগাম পদক্ষেপ নিয়ে আসছে দেশটি। যার কারণে মৃ'ত্যুর হার ০.৬ শতাংশে রয়েছে। যা বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক কম।