রাজনীতি

‘সরকার একুশের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করছে’

গায়ের জো’রে’ ক্ষমতায় থাকতে সরকার একুশের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করছে বলে অ’ভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে এক ভা’র্চুয়াল আলোচনা সভায় তিনি এ অ’ভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, ‘আজকে এদেশে ৫০ বছরের প্রাক্কালে আম’রা বেদনার সঙ্গে বলতে বাধ্য হই, একুশের চেতনা, মুক্তিযু’দ্ধের আকাঙ্ক্ষা, স্বাধীনতার প্রত্যাশা আজকে ভূলুণ্ঠিত। কারা ভূলুণ্ঠিত করেছে? আজকে যারা সরকারে তারা শুধুমাত্র গায়ের জো’রে স্বৈরাচারী কায়দায় ক্ষমতায় থাকার জন্য তারা এভাবে গণতন্ত্রকে হ’ত্যা করেছে।’

‘দেশের বিচার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে ও দলীয়করণ করে দেশের সব প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়ে আজকে বাংলাদেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রের দিকে পরিচালিত করছে। এই সরকার শুধুমাত্র ক্ষমতায় থাকার জন্য লো’ভে পড়ে আমাদের সব অর্জনকে ব্যর্থ করে দিচ্ছে।’

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘আম’রা দেখতে পাই, গণতন্ত্রহীনতা-বিচারহীনতা-দলীয়করণ এমন অবস্থায় আমাদেরকে নিয়ে ফেলেছে যেখানে দেশে নি’র্যা’তন-নি’পীড়ন, হ’ত্যা-গু’ম-খু’ন, চাঁদাবাজি-টেন্ডারবাজি-ক্যাসিনোবাজি, দু’র্নী’তিসহ হেন অ’পকর্ম নেই যা বাংলাদেশে হচ্ছে না।’

‘বিরোধী দলকে এই সরকার দাবিয়ে রাখার জন্য সব কিছু করছে। বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির নেতাকর্মীদের বি’রু’দ্ধে লাখের ওপরে মা’ম’লা, ৩৫ লাখের বেশি আ’সা’মি। গু’ম-খু’ন-বিচারবর্হিভূত হ’ত্যার শিকার এই দলের নেতাকর্মীরা। আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে একটি বানোয়াট মা’ম’লায় তাকে আজকে সাজা দিয়ে কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। দলের ভা’রপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নিম্ন আ’দা’লতের রায়ে যিনি খালাস পেয়েছেন সেটাকে উচ্চ আ’দা’লতে নিয়ে সেই আ’দা’লতকে প্রভাবিত করে তাকে আবার সাজা দেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে আমাদেরকে কথা বলতে দেয়া হয় না। আজকে কি অবস্থা? দেশে গণতন্ত্র নেই, মানুষের অধিকার নেই, মানুষের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। ১৯৫২ সালে ভাষা আ’ন্দোলনে অধিকারের জন্য আমাদের বীর বাঙালিরা সংগ্রাম করেছিল।’

‘আজকে যখন আম’রা রাস্তায় কথা বলতে যাই, সামান্য প্রতিবাদ করতে যাই আপনাদের সহ্য হয় না। এজন্য যে, আপনারা (ক্ষমতাসীন দল) দুর্বল। বিএনপিকে দুর্বল ভাবার কোনো কারণ নেই। বিএনপি যদি দুর্বল হবে তাহলে ২৯ তারিখ রাতে কেন আপনারা ভোট ডা’কাতি করেছেন, বিএনপি যদি দুর্বল হবে রাস্তায় আমাদের বক্তৃতায় পু’লিশ দিয়ে মাঝপথে থামালেন কেন? কারণ আপনারা বিএনপিকে ভ’য় পান, জনগণকে ভ’য় পান।’

এই অবস্থা থেকে উত্তরণে আ’ন্দোলনের জন্যে জনগণকে ‘ইস্পাতকঠিন ঐক্য’ গড়ে তোলার আহ্বান জানান খন্দকার মোশাররফ।

‘আমাদের সামনে যে চ্যালেঞ্জ সেই স’ম্প’র্কে আমাদের সচেতন হতে হবে। যদি ভাষা আন্দোলন সঠিক হয়ে থাকে, আমাদের মুক্তিযু’দ্ধ সঠিক হয়ে থাকে, আমাদের স্বাধীনতা সঠিক হয়ে থাকে তাহলে এদেশে গণতন্ত্র আমাদেরকে পুনরুদ্ধার করতে হবে, মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে, এদেশের জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠা করতে হবে, জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপির উদ্যোগে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ই’স’লা’ম খানের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির পরিচালনায় সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুল মঈন খান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও সেলিমা রহমান বক্তব্য রাখেন।

Back to top button