জেলার খবর

গৃহকর্মী ধ’;র্ষ’;ণ: সেই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী গ্রে’প্তা’র

অবশেষে পু’লিশের কাছে ধ’রা পড়ল গৃহকর্মী তরুণীকে ধ’;র্ষ’;ণের দায়ে অ’ভিযু’ক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র আমজাদ মাহমুদ নিলয়। মঙ্গলবার (৪মে) চাঁদপুর সদর মডেল থা’না পু’লিশ ভোলার জে’লার বোরহানউদ্দিন এলাকা থেকে তাকে গ্রে’প্তা’র করে।

সদর মডেল থা’নার ওসি আব্দুল রশিদ জানান, তথ্য প্রযু’ক্তি ব্যবহার করে এই মা’ম’লার ত’দ’ন্ত কর্মক’র্তা উপপরিদর্শক কবির হোসেন আত্মগো’প’নে থাকা নিলয়কে গ্রে’প্তা’র করতে সক্ষম হন। এর আগে গত ৩০ এপ্রিল এই মা’ম’লার অ’পর আ’সা’মি নিলয়ের মা শাহনাজ বেগমকে গ্রে’প্তা’র করে। তবে এখনো পলাতক রয়েছেন আরেক আ’সা’মি নিলয়ের বাবা আব্দুল মাজেদ।

পু’লিশ জানিয়েছে, চাঁদপুর শহরের ওয়ারলেস এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ বরকন্দাজের বাড়িতে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন আব্দুল মাজেদ-শাহনাজ বেগম দম্পতি। তারা দুইজনই চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এ কর্ম’রত। তাদের সন্তান আমজাদ মাহমুদ নিলয় রাজধানী ঢাকায় একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতেন। কিন্তু ক’রো’নার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় চাঁদপুরের বাসায় অবস্থান শুরু করেন নিলয়।

তার বাবা এবং মা যখন কর্মস্থলে যান, তখনই সুযোগ বুঝে গৃহকর্মী তরুণীকে একা পেয়ে ধ’;র্ষ’;ণ করতেন তিনি। ঘটনার শিকার অসহায় ওই তরুণী নিলয়ের বাবা-মাকে এমন অ’নৈ’তিক কাজের অ’ভিযোগ দিয়ে কখনো প্রতিকার পাননি। উল্টো তার ভাগ্যে জুটেছে অ’পবাদ আর মা’রধর। সবশেষ গত ৩০ এপ্রিল এসব থেকে পরিত্রাণ পেতে বাসা থেকে পালিয়ে সড়কে এসে আত্মহ’ত্যার চেষ্টা করেন ওই তরুণী।

তবে স্থানীয়দের কারণে তা ব্যর্থ হয়। একপর্যায়ে ঘটনাটি জে’লা পু’লিশ সুপার মিলন মাহমুদের নজরে পড়ে। পরে জে’লা পু’লিশ সুপারে নির্দেশে সদর মডেল থা’নায় ঘটনার শিকার অসহায় ওই তরুণী নিলয় ও তার বাবা-মায়ের বি’রু’দ্ধে মা’ম’লা দায়ের করেন।

এরপরই পু’লিশ প্রথমে অ’ভিযান চালিয়ে ওয়ারলেসের বাসা থেকে নিলয়ের মা শাহনাজ বেগমকে গ্রে’প্তা’র করে। তবে ওই সময় বাবা এবং ছে’লে পালিয়ে যায়।

গ্রে’প্তা’র হওয়া অ’ভিযু’ক্ত নিলয়কে বুধবার (৫ মে) চাঁদপুরের আ’দা’লতে হাজির করার কথা রয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঘটনার শিকার অসহায় ওই তরুণী তার প্রতিব’ন্ধী বাবার হেফাজতে আছেন। ইতোমধ্যে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

 

Back to top button