অপরাধ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পথে ৬ বাস আ’ট’ক

দেশব্যাপী ক’রো’নাভাই’রাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় বিধিনিষেধের (লকডাউন) মেয়াদ ১৬ মে পর্যন্ত বাড়নো হয়েছে। সরকারি প্রজ্ঞাপনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জে’লার অভ্যন্তরে বাস চলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে বন্ধ থাকবে দূরপাল্লার বাস এবং লঞ্চ ও ট্রেন চলাচল।

এদিকে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাতক্ষীরা থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে ছয়টি দূরপাল্লার বাস আ’ট’ক করেছে যশোর পু’লিশ।

মঙ্গলবার (৪ মে) রাত ১০টার দিকে যশোরের মণিরামপুর থা’নার সামনে ও যশোর শহরের নিউমা’র্কেট বাসস্ট্যান্ড থেকে চারটি ও রাত ১২টার পর যশোর কোতোয়ালি থা’নার সামনে থেকে আরও দুইটি যাত্রীবাহী বাস আ’ট’ক করা হয়।

যশোরের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (প্রশাসন) মাহাবুব কবীর জানান, সাতক্ষীরার শ্যামনগর থেকে ঠিকানা পরিবহন, গ্রিনবাংলা ও সাতক্ষীরা এক্সপ্রেসের চারটি বাস যাত্রী নিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে।

খবর পেয়ে রাতে যশোরের মণিরামপুর থা’নার সামনে ঠিকানা পরিবহনের একটি ও গ্রিন বাংলার দুটি বাস আ’ট’ক করা হয়।

এছাড়া একই রাতে যশোর শহরের নিউমা’র্কেট বাসস্ট্যান্ডে সাতক্ষীরা এক্সপ্রেসের একটি বাস আ’ট’ক করা হয়। বাস চারটিতে মোট ৮৪ জন যাত্রী ছিলেন। এরপর যাত্রীরা যে স্থান থেকে এসেছেন তাদের সেখানে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।

তিনি আরও জানান, বাস আ’ট’ক করা হলেও চালক ও হেলপারদের আ’ট’ক দেখানো হয়নি। ঊর্ধ্বতন কর্মক’র্তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তীতে তাদের বি’রু’দ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (যশোর সদর) শুভেন্দুকুমা’র মুন্সি জানান, রাতেই বাসের যাত্রীদের পু’লিশের উদ্যোগে মাইক্রোবাস ও কারযোগে নিজ নিজ বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

রাতে যশোর কোতোয়ালি থা’নার কাছ থেকে আরও দুটি যাত্রীবাহী বাস আ’ট’ক করা হয়েছে বলে পু’লিশ জানায়। এই বাস দুটিতে ৩০ জন করে মোট ৬০ যাত্রী ছিলেন।

Back to top button