আন্তর্জাতিক

ওমিক্রন ফুরালে ক’রো’না হয়ে যাবে মৌসুমি সর্দি-জ্বরের মতো

ক’রো’নাভাই’রাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন বর্তমানে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। ভাই’রাসটির নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের কারণে উদ্বেগের দেখা দিয়েছে বিশ্বজুড়েই। তবে, এতকিছুর মধ্যেও নতুন আশার আলো দেখছেন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী এবং প্রযু’ক্তি বিশেষজ্ঞ বিল গেটস। তিনি বলছেন, ওমিক্রনের সংক্রমণ শেষ হয়ে গেলে ক’রো’না সাধারণ মৌসুমি সর্দি-জ্বরের মতো অ’সুখে পরিনত হবে। সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি এ খবর জানিয়েছে।

এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশ্বিক জনস্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান দেবী শ্রীধরের সঙ্গে টুইটারে এক প্রশ্নোত্তর পর্বে বিল গেটস ক’রো’নার বিষয়ে নিজের মতামত তুলে ধরেন। বিল গেটস টুইটারে লেখেন, ক’রো’নার বর্তমান ঢেউ কমে গেলে এ বছরের সালের বাকি সময়টায় সংক্রমণের সংখ্যা ‘অনেক কম’ দেখার আশা করতে পারে বিশ্ব। তিনি বলেন, সংক্রমণ কমে গেলে কোভিড মৌসুমি ফ্লু বা ঠান্ডাজনিত অ’সুখের মতো হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

বিল গেটস লিখেছেন, ‘দেশে দেশে ওমিক্রনের ঢেউয়ে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা চ্যালেঞ্জে মুখে পড়েছে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, গুরুতর আ’ক্রা’ন্ত হচ্ছে টিকা না নেওয়া লোকজনই। একবার কোনো দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণ হয়ে গেলে, সে দেশে বছরের বাকি সময়ে সংক্রমণের হার অনেক কমে যাওয়ার কথা। সে ক্ষেত্রে কোভিডকে তখন মৌসুমি ফ্লু’র মতো দেখা যেতে পারে।’

মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং ধনকুবের জনহিতৈষী বিল গেটস বরাবরই জনস্বাস্থ্য বিষয়ে স্পষ্টভাষী হিসেবে পরিচিত। তিনি নিয়মিত কোভিড মহামা’রির বিষয়ে নজর রাখেন এবং মতামত দেন। এবং কোভিড ভবিষ্যতে সাধারণ ফ্লু’র মতো হয়ে যাওয়ার কথা বিল গেটসই প্রথম বলছেন না।

কিছু বিশেষজ্ঞ বলেছেন—ওমিক্রনের দ্রুত বিস্তার বিপজ্জনক হলেও এর মধ্য দিয়ে মানুষের মধ্যে তথাকথিত ‘প্রাকৃতিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা’ তৈরি হবে। এবং এভাবে একটা সময় কোভিড মহামা’রির গুরুতর পরিস্থিতির অবসান হবে। বিল গেটস তাঁর টুইটার প্রশ্নোত্তরে বলেন, ‘ওমিক্রনের সংক্রমণ অন্তত আগামী বছরের জন্য যথেষ্ঠ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করবে।’ একবার কোভিডের মহামা’রি পর্যায় শেষ হয়ে গেলে ‘আমাদের হয়তো কিছু সময়ের জন্য প্রতিবছর কোভিডের টিকা নিতে হতে পারে’—অনেকটা বাৎসরিক ফ্লু’র টিকার মতো, যোগ করেন বিল গেটস।

Back to top button