জাতীয়

দরিদ্র না’রী উদ্যোক্তাদের পণ্য কেনেন প্রধানমন্ত্রী

দরিদ্র ও অসহায় না’রী উদ্যোক্তাদের হাতে তৈরি বিভিন্ন পণ্য কেনেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতি বছর মহিলা ও শি’শু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন আরবান বেইজড উইমেন ডেভলপমেন্ট প্রজেক্টের স্টলে যান। নিজের হাতে তিনি বিভিন্ন পণ্য ধরে ধরে দেখেন। এরপর তিনি বিভিন্ন পণ্য কেনেন।

যুগান্তরকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এসব তথ্য জানান মহিলা ও শি’শু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অ’তিরিক্ত সচিব নূরুন নাহার হেনা। তিনি বর্তমানে ওই মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন আরবান বেইজড উইমেন ডেভলপমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

নূরুন নাহার হেনা বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী খোঁজ রাখেন না এমন বিষয় নেই। আমাদের স্টলে প্রধানমন্ত্রী নিজে আসেন। কারণ, তিনি জানেনই এ প্রকল্পটা কী? এই পণ্যগুলো দুস্থ, অসহায় দরিদ্র না’রীরা তৈরি করেন। তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে আজকের এই অবস্থানে নিয়ে আসা হয়েছে। আমি এজন্য আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাই যে, আমি এমন একটা প্রকল্পে এসেছি যে, যেখানে প্রত্যন্ত অঞ্চলের না’রীদের নিয়ে কাজ করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে আমাদের স্টলে আসেন তা আমা’র আরও ভালো লাগার বিষয়।

আরবান বেইজড উইমেন ডেভলপমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক বলেন, আমাদের জনগোষ্ঠীর অর্ধেকই না’রী। তারা বসে বসে ভাত খায়, কাজ করে না। কিন্তু তাদেরকে যদি কাজে লাগানো যায় তাহলে তারা ভালো কাজ করতে পারে।নূরুন নাহার হেনা বলেন, আমি যদি প্রকল্পে না আসতাম তাহলে বুঝতামই না এই সমস্ত না’রীদের মাঝে যে পটেনশিয়ালিটি (সম্ভাবনা) রয়েছে। তারা যে ভালো কাজ করতে পারে, তাদেরকে উৎসাহিত করলে যে তারা খুবই ভালো করে তা আমি দেখেছি।

তিনি বলেন, আমা’র প্রকল্পে দরিদ্র, বিধবা, অসহায় ও দুস্থ না’রীদের নিয়ে কাজ করা হয়। আমাদের উদ্দেশ্য ওই না’রীদের স্বাবলম্বী করা। দেশের উন্নয়নে পুরুষদের পাশাপাশি তাদেরকেও দাঁড় করানো। এছাড়াও তাদের উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণেও আম’রা সহায়তা দিয়ে থাকি।

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আবেগাপ্লুত মহিলা ও শি’শু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অ’তিরিক্ত সচিব নূরুন নাহার হেনা বলেন, আমি আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করি যে, দেশের সর্বোচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তিত্ব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্টলে এসে আমাদের উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্য নিজের হাতে ধরে দেখছেন। এগুলো তিনি কিনেও নিয়ে যাচ্ছেন। এটা একটা মানুষের জন্য বড় পাওয়া। এজন্য আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি।তিনি বলেন, আমাদের এ প্রকল্প এগিয়ে নিতে আমাদের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ও সচিব মহোদয় খুবই আন্তরিক।

Back to top button