জাতীয়

বিয়েপাগল কি’শোরের কা’ণ্ড

পাবনার ঈশ্বরদীতে বিয়ে করতে না দেওয়ায় বিয়েপাগল এক কি’শোর ফাঁ’স নিয়ে আত্মহ’ত্যা করেছে। মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে ঈশ্বরদী উপজে’লার মুলাডুলি ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

আত্মহ’ত্যা করা ওই কি’শোরের নাম হৃদয় (১৬)। তার পিতার নাম দুলাল হোসেন। বুধবার ভোরে বসতঘরের চালার ডাবের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় হৃদয়ের ম’রদেহ দেখতে পায় পরিবারের সদস্যরা।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, হৃদয় বিয়ে করতে চাইতো। প্রায়ই এ নিয়ে পরিবারে অশান্তি করতো। কিন্তু বিয়ের বয়স না হওয়ায় তাকে বিয়ে দেয়া সম্ভব হয়নি। মঙ্গলবার রাতে হৃদয়ের কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে তাকে ডা’কাডাকি করলে সে কোনো কথা না বলায় প্রতিবেশীদের ডেকে এনে দরজা ভেঙ্গে দেখা যায় হৃদয়ের দেহ চালার ডাবের সঙ্গে ঝুলছে।

স্থানীয় বাসিন্দা আয়নাল হোসেন জানান, হৃদয় প্রায়ই বিয়ে করার জন্য বাবা মাকে বলতো। একাধিকবার এ নিয়ে পারিবারিকভাবে ঝগড়া-বিবাদ হয়েছে। এর আগেও বিয়ের দাবিতে হৃদয় বিষপান করেছিল। তখন দ্রুত হাসপাতা’লে নিয়ে চিকিৎসা করায় সে প্রা’ণে রক্ষা পেয়েছিল।

মুলাডুলি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) বানেছ আলী প্রামাণিক বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে শুনতে পেলাম ছে’লেটি বিয়ে করতে চেয়েছিল কিন্তু পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভাল না। ছে’লেটিরও নির্দিষ্ট কর্ম নেই। তাই ছে’লের বাবা বলেছিলেন কিছুদিন পরে বিয়ে দিবে। কিন্তু ছে’লে তা না শুনে অ’ভিমান করে আত্মহ’ত্যা করেছে।

ঈশ্বরদী থা’নার এস আই রবিউল ই’স’লা’ম জানান, হৃদয় পরিবারের প্রতি অ’ভিমান করে আত্মহ’ত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে।

Back to top button