জাতীয়

বরাদ্দ বাড়িয়েও মিটছে না চাহিদা, পাল্টাপাল্টি দোষারোপ

বরাদ্দ বাড়িয়েও মিটছে না চাহিদা। রমজান সামনে রেখে টিসিবির বিশেষ ট্রাকসেল কার্যক্রমে দুপুর গড়াতেই শেষ হয়ে যায় পণ্য। প্রতি ট্রাকে আড়াইশো থেকে পাঁচশো কেজি পর্যন্ত পণ্য বেশি বরাদ্দ থাকলেও চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে টিসিবি।

মহাখালীর টিসিবি পয়েন্টে ভোর ৬টা থেকে পণ্য নিতে লাইনে দাঁড়িয়েছেন শখানেক মানুষ। সূর্যের দেখা মিলতে মিলতে সেই লাইনের পরিধি বেড়ে হাজার ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে বেলা ১১টার দিকে ট্রাক এলে দীর্ঘ অ’পেক্ষার প্রহর শেষ হয়। এরপরই কে কার আগে পণ্য নেবে, সেই নিয়ে চলতে থাকে ধাক্কাধাক্কি।

এতকিছুর পরও পণ্য হাতে পান না অনেকে। বহু সময় দাঁড়িয়ে থেকেও খালি হাতে ফিরতে দেখা গেছে অনেককে।

ডিলাররা জানাচ্ছেন, বেলা ১১টার দিকে ১ হাজার কেজি পেঁয়াজ, ৫০০ কেজি তেল এবং ৫০০ কেজি ডাল নিয়ে ট্রাকটি এলেও দুপুর গড়াতে না গড়াতেই শেষ হয়ে যায় পণ্য। তাদের দাবি, কিনতে আসা লোকজন নিজেদের পোশাক বদল করে একাধিকবার পণ্য নিয়ে যাচ্ছে।

অ’পরদিকে ক্রেতারা গণ্যমাধ্যমকে দিলেন ভিন্ন তথ্য। তারা বলেন, ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়েও তারা পণ্য পাচ্ছেন না। উল্টো ক্রেতাদের অ’ভিযোগ, ট্রাকে পণ্য মজুত করে সেগুলো সরবরাহ করা হচ্ছে সরকারি চাকরির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট লোকজনকে।

ঢাকা ছাড়া দেশের অন্য জে’লাগুলোয় টিসিবির পণ্য নিতে ক্রেতাদের জন্য করা হয়েছে কার্ড সিস্টেম। তবে ঢাকায় এই পদ্ধতি না থাকায় টিসিবির কার্যক্রমে দিন দিন বাড়ছে বিশৃঙ্খলা। নিত্যপণ্যের দাম কমানোর পাশাপাশি এই বিশৃঙ্খলা কমাতে সরকার শিগগিরই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে–সে আশায় তাকিয়ে আছেন সাধারণ মানুষ।

 

Back to top button