জাতীয়

না’রীদের নিজের বাড়ি নেই

আজ শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, আমা’র বাপের বাড়ি আমা’র বাড়ি, আমা’র শ্বশুর বাড়িও আমা’র বাড়ি। আমি যেখানে থাকবো সেটি আমা’র বাড়ি। এ পৃথিবী আমা’র বাড়ি কারণ আমি এ পৃথিবীর সন্তান। আন্তর্জাতিক না’রী দিবস উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার ১০ মা’র্চ রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) আয়োজনে আলোচনা সভায় প্রধান অ’তিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, না’রীর যে অসহায়ত্ব, একটা দুঃসহ স’ম্প’র্কের মধ্যে অধিকাংশ সময় না’রী আ’ট’কে থাকে কারণ তার যাওয়ার জায়গা নেই। তার সমাজ তাকে শিখিয়েছে যেখানে যে সংসারে সে জন্ম নিয়েছে, সেটা তার বাপের বাড়ি। বিয়ের পর সে যেখানে যাচ্ছে, সেটা তার শ্বশুর বাড়ি। না’রীদের নিজের বাড়ি বলে কোনো কিছু নেই।

তিনি আরও বলেন, আম’রা বছরে একটি দিন না’রী দিবস পালন করি সেটা অন্য সব দিবস পালন করার মতোই যে, এই বিষয়টা নিয়ে একটা সচেতনতা তৈরি করা। আমি বিশ্বা’স করি প্রত্যেকটি দিন না’রী দিবস। প্রত্যেকটা দিন না’রীর জন্য। কারণ বিশ্বটাই একেবারেই অচল হয়ে যেত মানব সমাজ একবার তৈরি হওয়ার পরে আর দ্বিতীয়বার এগিয়ে যাবার কোনো সুযোগ থাকতো না না’রী না থাকলে। প্রকৃতি সবচেয়ে কঠিন ও জরুরি কাজটি না’রীকে দিয়েছে সন্তান ধারণ বা গর্ভ ধারণ, সন্তান লালন-পালনের।

এ সময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, না’রী সবচেয়ে বেশি দায়িত্বশীল। রান্না করবে কে? না’রী। শেলাই করবে কে? না’রী। ঘর ধুয়ামোছা করবে কে ? না’রী। কিন্তু যখনই এর সঙ্গে অর্থপ্রাপ্তি যোগ হয়, তখন দর্জি পুরুষ, বাবুর্চি পুরুষ এবং ক্লিনারও পুরুষ। যে কাজ অর্থ ছাড়া করা হয় সেটি না’রীর কাজ। আর অর্থ যোগ হলেই তা পুরুষের। এটি সমাজের তৈরি করা।

তিনি আরও বলেন, ‘আম’রা চাকরিতে অনেক জায়গায় দেখছি না’রী। ৭২-এর সংবিধানে না’রীর সমানাধিকারের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু আজ যারা না’রীর ক্ষমতায়ন নিয়ে কাজ করেন সেখানেও ক্ষমতায়নে না’রীর অবস্থান তৈরি হয়নি। এটি সত্য আমাদের প্রধানমন্ত্রী, সংসদ উপনেতা, স্পিকার, বিরোধীদলীয় নেতা না’রী। অথচ সিদ্ধান্ত গ্রহণের জায়গায় না’রীর অবস্থান এখনও কম। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এতো বিশাল মন্ত্রণালয়। আমি মন্ত্রী না’রী। মাঠ পর্যায়ে অনেক শিক্ষক আছেন না’রী। কিন্তু সিদ্ধান্ত গ্রহণের জায়গায় না’রী খুব কম।’

Back to top button