জাতীয়

এমপির বি’রু’দ্ধে জায়নামাজ বিছিয়ে আম’রণ অনশনে বৃদ্ধ

বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের বি’রু’দ্ধে জমি জবরদখল করে স্থাপনা নির্মাণের অ’ভিযোগ এনে ওই জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে জায়নামাজ বিছিয়ে আম’রণ অনশনে বসেছেন এক বৃদ্ধ।

বৃহস্পতিবার (১০ মা’র্চ) বেলা ১১টায় বরগুনা জে’লা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে অনশনে বসেন তিনি।অনশনে বসা বৃদ্ধের নাম বেলায়েত হোসেন। তিনি পাথরঘাটা উপজে’লার রায়হানপুর ইউনিয়নের পূর্ব লেমুয়া গ্রামের বাসিন্দা।

বেলায়েত হোসেনের অ’ভিযোগ, কাকচিড়া নৌপু’লিশ ফাঁড়ির সামনে কাকচিড়া-লেমুয়া সড়কের দক্ষিণ পাশে তার পৈতৃকসূত্রে প্রাপ্ত জমি দখলে নিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করছেন বরগুনা-২ আসনের এমপি শওকত হাচানুর রহমান রিমন। কাজ শুরুর পর তিনি এমপি রিমনের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কোনো ফল হয়নি। পরে পাথরঘাটা থা’নায় লিখিত অ’ভিযোগ দিয়েছিলেন। কিন্ত কোনো সমাধান হয়নি। নিরুপায় হয়ে আজ তিনি জমিতে স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ ও দখলমুক্ত করার দাবিতে অনশনে বসেন।

জমির দলিলপত্র দেখিয়ে বেলায়েত হোসেন বলেন, বরগুনা জে’লার পাথরঘাটা উপজে’লার লেমুয়া মৌজার জেএল নং-০৪, এসএ খতিয়ান নং- ৫৪০/১১৬১ দাগ নং- ৩১৭০ এর ৩.৫০ শতাংশ জমি নিয়ে বিজ্ঞ আ’দা’লতে বন্টন মা’ম’লা বিচারাধীন রয়েছে। ওই মা’ম’লায় সম্প্রতি জমিতে স্থিতাবস্থা জারি করে আদেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ আ’দা’লত। কিন্ত আ’দা’লতের আদেশ অমান্য করে গত ২২ ফেব্রুয়ারি বিকালে স্থানীয় সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন ও তার অনুসারী কাকচিড়ার বাসিন্দা মাহবুব দালালকে দিয়ে ওই জমিতে মাটি কা’টার কাজ শুরু করেন। তিনি এতে বাধা দেওয়ার পর বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার কথা হয়।

কিন্ত গত ২৭ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১টার দিকে তিনি তার জমিতে গিয়ে দেখতে পান, সেখানে স্থাপনা নির্মাণের কাজ করছেন। পরের দিন ২৮ ফেব্রুয়ারি পাথরঘাটা থা’নায় জমি দখলের বিষয়টি উল্লেখ করে লিখিত অ’ভিযোগ করেন। এর মধ্যে বেলায়েত হোসেনের ভাই অ’সুস্থ্য হওয়ায় তাকে চিকিৎসার জন্য বরিশাল নিয়ে যান। ফিরে এসে গতকাল বুধবার দেখতে পান ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন এমপি রিমন। নিরুপায় হয়ে তাই অনশনে বসেছেন।

বেলায়েত আরও বলেন, আমা’র বয়স ৬৫ বছর। আমি এ জমির বন্টন নিয়ে মা’ম’লা চালাতে গিয়ে নিঃস্ব হয়েছি। এখন জমিটুকু ছাড়া কোনো সম্বল নেই। আমি আমা’র জমি বুঝে পেতে সবার সহযোগিতা চাই।জে’লা প্রশাসক হাবিবুর রহমানের সরকারি মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার কল করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

এ বিষয়ে এমপি শওকত হাচানুর রহমান রিমন বলেন, বেলায়েত হোসেনের দাবি’কৃ’ত খতিয়ানের ৩১৭০ দাগে আমি কাজ করছি না। ৩১৭১ দাগে আমা’র ৫ শতাংশ জমি কেনা আছে। ওই জমিতে আমি কাজ করছি। অনশনের বিষয়টি পুরোপুরি ‘রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র’। আমি সব কাগজ জে’লা প্রশাসক ও পাথরঘাটা থা’নায় দিয়েছি।বরগুনার পু’লিশ সুপার মুহাম্ম’দ জাহাঙ্গীর মল্লিক বলেন, আমি বৃদ্ধের অ’ভিযোগের কথা শুনেছি এ বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে জেনে ব্যবস্থা নেব।

Back to top button