জাতীয়

বধূর সাজে সেই জার্মান না’রী

প্রণয়ের স’ম্প’র্ক থেকে বিয়ে, অ’তঃপর স্বামী-সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে সুদূর জার্মানি থেকে বরিশালে ছুটে আসেন আলিসা থেওডোরা পিত্তা। বরিশালের ছে’লে রাকিব হোসেন শুভর সঙ্গে জামা’র্নিতে পরিচয়ের পর পরিণয়, এরপর বিয়ে হয় তাদের।

তবে সেখানে বাঙালি রীতি অনুযায়ী ঢাক-ঢোল পি’টি’য়ে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়নি। তবে এবার বাংলা রীতিতে বরিশালের মাটিতে হলো তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান।
শুক্রবার (১১ মা’র্চ) বরিশাল সদর উপ‌জে’লার চরবা‌ড়িয়ার উলাল বাটনা এলাকার বাসিন্দা ও চরবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ই’স’লা’মের বাড়িতে অনুষ্ঠিত হয় বৌ-ভাত অনুষ্ঠান।

শহিদুল ই’স’লা’ম জানান, ৬৫টি বড় বড় পাত্রে বিয়ের রান্নার আয়োজন করা হয়, যেখানে দুপুরে খাওয়ার জন্য ৩ হাজার মানুষের খাবারের আয়োজন ছিল। সবকিছু ভালো’ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বিয়ের প্রতিটি আয়োজন দেখে ছে’লের বউ ও তার বান্ধবী বেশি খুশি বলেও জানান তিনি।

ইতোমধ্যে শ্বশুরবাড়ির আথিতেয়তায় বেশ খু‌শি আলিসা। বিয়ের অনুষ্ঠানের পাশাপাশি গ্রামের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে বেড়ানো, ছবি তোলায় সময় কা’টাচ্ছেন তিনি ও তার বান্ধবী। সবার সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলায় এরইমধ্যে পরিণত হয়েছেন সবার মধ্যমণিতে। তার প্রতি আদর-যত্নের কমতি রাখছেন না প্রতিবেশিরাও।

এর আগে বুধবার (০৯ মা’র্চ) সন্ধ্যায় আলিসার শ্বশুর শহিদুল ই’স’লা’মের বা‌ড়িতেই গায়ে হলুদের আয়োজন করা হয়। যেখানে আলিসা ও শুভকে হলুদ মাখান স্বজনরা। এরপর শুক্রবার বৌভাত অনুষ্ঠানে উভ’য়ই বিয়ের সাজ সাজেন। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিতদের যখন খাবার দেওয়া হয় তখন সেখানে উভ’য়কেই দেখা যায় খোঁজ-খবর নিতে।

এদিকে বিয়ের এ আ‌য়োজন ঘিরে বা‌ড়ির দুইপ্রা‌ন্তে প্রায় দুই কি‌লো‌মিটার সড়ক জু‌ড়ে বাহা‌রি রং‌য়ের আলোকসজ্জা করা হ‌য়ে‌ছে। সেইসঙ্গে বসানো হয় তোরণও। অন্যদিকে বাড়ির পা‌শের মা‌ঠে করা হয় সাংস্কৃ‌তিক অনুষ্ঠা‌ন।

Back to top button