জাতীয়

হিজাব পরে বাইক নিয়ে দূরন্ত গতিতে ছোটেন আলিমা

হিজাব পরিধান করা ই’স’লা’মের অন্যতম ফরজ বিধান। যদি কেউ এ বিধানের অমান্য করে তবে অবশ্যই তাকে পরকালের জবাবদিহির পাশাপাশি শা’স্তি ভোগ করতে হবে। আর তাইতো, বোরকা এবং হিজাবে নিজেকে পুরোপুরি আবৃত করে রাখেন আলিমা রহমান। হিজাব পরেই কলকাতার রাস্তায় বাইক নিয়ে দূরন্ত গতিতে ছোটেন তিনি। হিজাবি বাইকার হিসেবে কলকাতার রাস্তায় এখন চেনামুখ ২১ বছর বয়সী আলিমা। বলা হচ্ছে, তিনিই কলকাতার প্রথম হিজাবি বাইকার।

সম্প্রতি আলিমাকে নিয়ে টিভি-৯ একটি ভিডিও প্রতিবেদন করেছে। সেখানে আলিমা বলেন, তাকে কলকাতার মানুষ ‘হিজাবি বাইকার’ বলে সম্বোধন করছেন। আলিমা বলেন, ‘ওরা বলে আমিই নাকি কলকাতার প্রথম হিজাবি বাইকার।’নিজের পরিচয় জানিয়ে আলিমা বলেন, ‘একটি বেসরকারি কলেজের আইনের ছা’ত্রী আমি। নে’শায় রাইডার, বয়স ২১ ছুঁয়েছি। জন্মেছি পার্কসার্কাসে।’

হিজাবকে না’রীর চলাফেরায় বাধা মনে করেন না আলিমা। তিনি জানান, ২০০২ সালে প্রথম যখন তার ভাই বাসায় বাইক নিয়ে আসেন। তখন থেকেই তার বাইক চালানোর প্রতি আগ্রহ। পরে বাবা আজিজুর রহমানকে বিষয়টি বলেন। বাবা মে’য়ের ইচ্ছেকে ফেলে দেননি। গুরুত্ব দিয়ে নিজেই বাইক চালানো শেখান মে’য়েকে।

বাইক চালানো শেখার পর আনন্দে ভাসছিলেন আলিমা। প্রথম যখন বাবার সঙ্গে পাশাপাশি বাইক চালাচ্ছিলেন সেটি আলিমা’র জীবনে অন্যতম সুন্দর সময় বলে উল্লেখ করেন তিনি। তবে বাইক চালাতে আলিমা’র ভালো লাগলেও আশপাশের মানুষের কাছে বিষয়টি ভালো লাগেনি। নানা সময় কটূ কথা শুনতে হয়েছে। এখনও হচ্ছে।

আলিমা বলেন, ‘বাইক চালানো আমা’র ভালো লাগলেও আশপাশের মানুষদের ভালো লাগেনা। তারা ভালো’ভাবে নেন না। মে’য়ে হয়ে বাইক চালাই বলে অনেকেই বাঁকা চোখে দেখেন, তিরষ্কার করেন।’

 

Back to top button