বিনোদন

পরীমনির দেওয়া সেই নাকফুল পুত্রবধূকে দেবেন শি’শুটির মা

অরণ্য আনোয়ারের ‘মা’ ছবির শুটিংয়ে ভালোবাসার অনন্য এক দৃষ্টান্ত দেখালেন পরীমনি। ছবিতে তার সন্তানের চরিত্রে অ’ভিনয় করেছে একটি শি’শু। দুই মাস বয়সী শি’শুটির বাবা একজন অটোরিকশাচালক, মা গৃহিণী। সেই দুই মাসের শি’শুটিতে ‘মা’ পরীমনি উপহার দিলেন একটি সোনার নাকফুল।

গত বছর অ’ভিনেতা শরিফুল রাজকে বিয়ে করেছেন পরীমনি। বিয়ের সময় রাজ অন্য অনেক উপহারের পাশাপাশি পরীমনিকে দিয়েছিলেন দুটি নাকফুল, সেখান থেকে একটি পরী উপহার দিলেন শি’শুটিকে।
এই ঘটনা কাউকে জানাতে চাননি রাজ ও পরীমনি। কিন্তু গতকাল রাতে পরীমনির মমতামাখা মনের খবর জানিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন পরিচালক অরণ্য আনোয়ার। সেখানেই উঠে আসে পরীর এই গো’প’ন মাতৃত্ব ও ভালোবাসার কথা। পরিচালককে পরী বলেছিলেন, ‘গত কটা দিন ওর সঙ্গে মায়ের চরিত্রে অ’ভিনয় করে ওর প্রতি আমা’র মায়া জমে গেছে। ’

আগে মুখ খুলতে না চাইলেও পরিচালকের পোস্টের পর আজ এ বিষয়ে মুখ খুললেন পরীমনি। ‘বিশ্বসুন্দরী’ অ’ভিনেত্রী বলেন, ‌“রাজের দেওয়া দুটি নাকফুলের একটি বিয়ের দিন পরেছিলাম। আরেকটা পরলাম ‘মা’ ছবির শুটিংয়ে। শুটিং শেষে বাচ্চাটার মায়ের হাতে নাকফুলটা দিলাম যেন বড় হয়ে সে এই স্মৃ’তিটুকু মনে রাখে। বাচ্চাটার মা আমাকে কথা দিয়েছেন, ছে’লের বিয়ের সময় তিনি নাকফুলটা পুত্রবধূকে দেবেন। একবার ভাবুর, রাজের দেওয়া প্রিয় এ নাকফুলটা কতটা যত্নে থাকবে। এসব ভাবলে চোখে পানি চলে আসে। জীবনটা অনেক সুন্দর মনে হয়। ”

একটি ম’র্মা’ন্তি’ক সত্য ঘটনা থেকে অনুপ্রা’ণিত হয়ে ‘মা’ ছবির চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন অরণ্য আনোয়ার নিজেই। ১৯৭১ সালে মৃ’ত ঘোষিত সাত মাস বয়সী এক সন্তানকে নিয়ে অসহায় মায়ের আবেগের গল্প নিয়ে এই ছবি। গত বছর ২৯ সেপ্টেম্বর ছবিটিতে চুক্তিবদ্ধ হন পরীমনি। এ বছরের শুরুতে ছবির শুটিং শুরু করেন অরণ্য আনোয়ার। এরমধ্যেই সন্তানসম্ভবা হয়ে অ’ভিনয় থেকে বিরতি নেওয়ার কথা বলেছিলেন পরী। তবে এই ছবিটির শুটিং করেছেন অ’ভিনেত্রী। ১০ মা’র্চ গাজীপুরে ছবিটির দৃশ্যধারণ সম্পন্ন হয়।

 

Back to top button