জাতীয়

সানি লিওনের বাংলাদেশে আসার সঙ্গে তথ্য মন্ত্রণালয়ের কোনো সম্পৃক্ততা নেই

নিষেধাজ্ঞা থাকার পরেও প্রথমবারের মত বাংলাদেশে আসেন বলিউড অ’ভিনেত্রী সানি লিওন। বাংলাদেশের একটি ছবিতে কাজ করার জন্য এখানে আসার অনুমতি চেয়েছিল সানি লিওন। তবে সানি লিওনের অনুমতি বাতিল করে দেয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়।

এর একদিন পর গত শনিবার (১২ মা’র্চ) বিকালে বাংলাদেশে আসেন সানি লিওন। তার বাংলাদেশে আসার সঙ্গে নিজেদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলে দাবি করেছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। রোববার (১৩ মা’র্চ) এক বি’জ্ঞ’প্তিতে এ তথ্য জানায় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়।

চলচ্চিত্র-১ শাখার উপসচিব মো. সাইফুল ই’স’লা’ম স্বাক্ষরিত বি’জ্ঞ’প্তিতে বলা হয়, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের ২ মা’র্চ এর ৫২ নং স্মা’রকের মাধ্যমে ‘সোলজার’ নামক চলচ্চিত্রে কাজের জন্য আ’মেরিকান অ’ভিনেত্রী করনজিৎ কর ওয়েভা’রের অনুকূলে বাংলাদেশের ওয়ার্ক পারমিট দেওয়া হয়। পরবর্তীতে দেখা যায়, এ আ’মেরিকান অ’ভিনেত্রী প্রকৃতপক্ষে সানি লিওন। সঠিক তথ্য গো’প’ন করে ওয়ার্ক পারমিট নেওয়ার বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে তার ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করা হয়।

এতে আরও বলা হয়, সানি লিওন গানবাংলা টেলিভিশনের আমন্ত্রণে বাংলাদেশে এসেছেন। এই আগমনের সঙ্গে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

এর আগে বাংলাদেশের ‘সোলজার’ সিনেমায় কাজ করার জন্য বাংলাদেশে প্রবেশ করতে সরকারের কাছে অনুমতি চেয়েছিলেন সানি লিওন। তবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় প্রথমে তাকে অনুমতি দিলেও পরে তার বাংলাদেশে আসার অনুমতি বাতিল করে দেয়। সানি লিওন তার নাম গো’প’ন করে ভিন্ন নামে, নিজেকে মা’র্কিন নাগরিক দেখিয়ে অনুমতি নেন। তথ্য মন্ত্রণালয় বিষয়টি জানার পর তার বাংলাদেশে আসার অনুমতি বাতিল করে।

 

Back to top button