জাতীয়

আয়-ব্যয়ের হিসাব মিলাতে টিসিবির ট্রাকের লাইনে নিম্ন ও মধ্যবিত্ত

আয় আর ব্যয়ের হিসাব মেলাতে রাজধানীর টিসিবির ট্রাকের লাইনে শত শত মানুষ। বাজারের আ’গু’ন দামের সঙ্গে পাল্লা দিতে না পেরে এক কাতারে নিম্ন থেকে মধ্যবিত্ত। চাহিদার চেয়ে পণ্য কম হওয়ায় অনেককেই ফিরতে হয় খালি হাতে।

একদিকে বাজারে যখন ক্রেতার সংখ্যা তুলনামূলক কম, অন্যদিকে টিসিবির ট্রাকের সামনে কিছুটা সাশ্রয়ের আশায় লম্বা লাইন। নিম্ন আয়ের মানুষকে স্বস্তি দিতে টিসিবি, ওএমএস এর মতো সরকারি কার্যক্রম চলছে। কাকডা’কা ভোরেই টিসিবির ট্রাকের অ’পেক্ষায় লাইন ধরেন কয়েকশো মানুষ।

দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়েও পণ্য না পাওয়া ভোক্তারা বলেন, দুই ঘণ্টা ফার্মগেটে দাঁড়ানোর পর দেখলাম কোনো গাড়ি নেই। তারপর এক ঘণ্টা পর সিরিয়াল পেলাম। এখনও পাই নি। এখনও সামনে ১০ জন রয়েছেন।

সোমবার (১৪ মা’র্চ) সকাল ১০ টায় আসার কথা থাকলেও অবশেষে ফার্মগেটের পাশের এলাকা খামা’রবাড়িতে পৌনে ১২টায় দেখা মিলল টিসিবির ট্রাক। আবারও লম্বা লাইন। কেউ কেউ বেশি পণ্য পাওয়ার আশায় লাইনে দাঁড় করিয়েছেন পরিবারের একাধিক সদস্যকে। সব বাদানুবাদ ছাপিয়ে যারাই পণ্য পেয়েছেন খুশি তারা। তখনও লাইনের শেষ অনিশ্চয়তা নিয়ে অ’পেক্ষায় অনেকে।

তারা বলেন, ফজরের নামায পড়ে এসেছি। এখনও লাইনেই দাঁড়িয়েই রয়েছি। পণ্য পাব কি না, তা জানি না।এদিকে ডিলাররা জানান, টিসিবির গোডাউন থেকে পণ্য নিতে দেরি হয়ে যায়। তাই সময় মতো স্পটে পৌঁছাতে পারেনে না তারা।

উল্লেখ্য, ঢাকায় ১৫০টি ট্রাকের মাধ্যমে ১১০ টাকায় সয়াবিন তেল, ৬৫ টাকায় ডাল, ৫৫ টাকায় চিনি ও পেঁয়াজ ৩০ টাকা দরে বিক্রি হয়।

Back to top button