জাতীয়

আ.লীগ-বিজেপির বৈঠকে স’ম্প’র্ক জো’রদার নিয়ে আলোচনা

ঢাকায় সফররত ভা’রতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) আন্তর্জাতিক বিষয়ক বিভাগের প্রধান বিজয় মুরলিধর চৌথাইওয়ালে’র সঙ্গে বৈঠক করেছে আওয়ামী লীগ এবং ১৪ দলীয় জোটের প্রতিনিধি দল।

সোমবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আলাদাভাবে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে নিজেদের মধ্যেকার বিদ্যমান স’ম্প’র্ক আরও সুদৃঢ় করার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এছাড়া বাংলাদেশ ও ভা’রতের বিদ্যমান দ্বি-পাক্ষিক সুস’ম্প’র্ক ভবিষ্যতে আরো জো’রদার হওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এসময় দলের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী ও কাজী জাফরউল্লাহ, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এবং বাংলাদেশে নিযু’ক্ত ভা’রতীয় হাই কমিশনার বিক্রম কুমা’র দোরাইস্বামী, ডেপুটি হাই কমিশনার ড. বিনয় জর্জসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রসংশা করে বিজয় চৌথাইওয়াল বলেন, ক’রো’নাভাই’রাস মোকাবিলায় শেখ হাসিনা একজন সফল প্রধানমন্ত্রী। ক’রো’নাকালীন তিনি যেভাবে বাংলাদেশের অর্থনৈতির চাকা সচল রেখেছেন তা অবশ্যই প্রসংশার দাবি রাখে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে ভা’রতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশে এসেছিলেন। গত এক দশকে নরেন্দ্র মোদি সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের স’ম্প’র্ক আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। ভবিষ্যতে এই স’ম্প’র্ক আরও সুদৃঢ় হবে। বিজেপি সব সময় আওয়ামী লীগের সফলতা কা’মনা করে বলেও জানান বিজয় চৌথাইওয়াল।

তিনি আরও বলেন, বিজেপির তরুণ নেতাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের তরুণ নেতাদের যোগাযোগ আরও বাড়াতে হবে। একই সঙ্গে না’রী সদস্যদের মধ্যেও স’ম্প’র্কের উন্নয়ন করতে হবে। তারা নিজেদের মধ্যে অ’ভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারলেই স’ম্প’র্কের আরও উন্নয়ন হবে।

বিজয় চৌথাইওয়াল বলেন, ক’রো’নাকালীন আমাদের মধ্যে যোগাযোগ বাধাগ্রস্থ হয়েছে, এখন তা বৃদ্ধি করতে হবে।
বৈঠকে তিনি আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান এবং ভবিষ্যতে বিজেপির পক্ষ্য থেকে আরও বড় টিম বাংলাদেশ সফরে আসবে বলেও জানান। একই সঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলকে ভা’রতে সফরের আমন্ত্রন জানান।

বৈঠকে ওবায়দুল কাদের বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষের সমাপনী অনুষ্ঠানে ভা’রতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ বাংলাদেশে এসেছিলেন। এছাড়াও সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে ভা’রতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এসেছিলেন। এর ফলে দু’দেশের স’ম্প’র্ক আরও দৃঢ় হয়েছে।

একই দিন বিকালে সোনারগাঁও হোটেলে ১৪ দলের সঙ্গে বৈঠক করেন ঢাকায় সফররত এই বিজেপি নেতা। বৈঠকে ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র এবং আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সভাপতি দীলিপ বড়ুয়া, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, আওয়ামী লীগের মুক্তিযু’দ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, ঢাকায় নিযু’ক্ত ভা’রতীয় হাই কমিশনার বিক্রম কুমা’র দোরাইস্বামী উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে আমির হোসেন আমু বলেন, তাদের (বিজেপির) দলীয় উদ্দেশ্য, বিভিন্ন দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে স’ম্প’র্ক উন্নয়ন করা। তারই অংশ হিসেবে তারা বাংলাদেশে এসেছেন। তিনি (বিজয় চাতওয়ালার) নানা বিষয়ে আমাদের মতমত জানতে চেয়েছেন। বাংলাদেশের সঙ্গে ভা’রতের স’ম্প’র্ক কি, আম’রা কি চাই, ইত্যাদি নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। মূলত স’ম্প’র্ক উন্নয়নে যা যা জানা দরকার বোঝা দরকার, সেগুলো বোঝাপড়া করার জন্য এই আলোচনা।

তিনি আরও বলেন, আম’রা আমাদের কথা বলেছি। তিস্তার পানির কথা বলেছি, বর্ডার কি’লিং বিষয়ে তুলে ধরেছি। আসাম থেকে যারা মাইগ্রেন্ট করেছে তাদের বিষয়েও বলেছি। তাদের পাঠানো যাতে না হয় এগুলো নিয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। তিনি বিষয়টি (বিজয় চৌথাইওয়াল) যথাযথ জায়গায় পৌছে দেবেন বলে আশ্বস্থ করেছেন এবং এই ব্যাপারে তিনি তার ভূমিকা রাখবেন।

আমির হোসেন আমু বলেন, এটা পার্টি লেবেলে আলোচনা। তিনিও গর্ভমেন্টে নাই আম’রাও নাই। পার্টি টু পার্টি আলোচনা। তিনিও সরকারি দলের লোক আম’রাও সরকারি দলের সেই হিসেবে একটা জায়গায় মিল আছে।

এই পর্যায়ে তো অনেক আলোচনা হয়েছে সমাধানের কি কোন পথ বের হলো এমন প্রশ্নের জবাবে আমির হোসেন আমু বলেন, আলোচনা হতে হতেই একটা সময় সমাধানে আসে। অনেক বার অনেক আলোচনা হয়েছে হতে হতে সমাধান হবে। আগামী নির্বাচন নিয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কি না এবিষয়ে বলেন, না, নির্বাচন ব্যাপারে কোন আলোচনা হয়নি।

সফরকালে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে বৈঠক হবে কি না এ বিষয়ে ১৪ দলের সমন্বয়ক বলেন, এটা তারা বলতে পারবে। এটা তাদের ব্যাপার। বিভিন্ন দলের সাথে যোগাযোগ করতে পারে, করুক আমাদের কোন আ’প’ত্তি নাই।

এর আগে সকালে বিজয় চৌথাইওয়াল ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে রক্ষিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। একই দিন আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপকমিটি এবং সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সঙ্গেও বৈঠক করেন তিনি।

Back to top button