জাতীয়

ব্রেকিংঃক’রো’নায় আজও মৃ’ত্যুশূন্য দেশ

ক’রো’নাভাই’রাস মহামা’রিতে আজও মৃ’ত্যুশূন্য দিন দেখেছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে লাগাতার দুইদিন ভাই’রাসটিতে কারো মৃ’ত্যু হয়নি।স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, গত ২৪ ঘণ্টায় এই ভাই’রাসে কারও মৃ’ত্যু হয়নি। ফলে মৃ’ত্যুর মোট সংখ্যা ২৯ হাজার ১১২ জনেই রয়েছে।

তবে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৮২ জন। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৪৯ হাজার ৭২৫ জনে। শনাক্তের হার ১ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো ক’রো’নাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বি’জ্ঞ’প্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।দেশে ক’রো’নাভাই’রাসের প্রথম সংক্রমণ ধ’রা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মা’র্চ। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মা’র্চ দেশে প্রথম মৃ’ত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেই বছর সর্বোচ্চ মৃ’ত্যু হয়েছিল ৬৪ জনের।

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ায় গত বছর জুন থেকে রোগীর সংখ্যা হু-হু করে বাড়তে থাকে। ২৮ জুলাই একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার ২৩০ জনের ক’রো’না শনাক্ত হয়েছিল।২০২১ সালের ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো দেশে ক’রো’নায় মৃ’তের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে ৫ ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃ’ত্যু হয়, যা মহামা’রির মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ মৃ’ত্যু। এরপর বেশকিছু দিন ২ শতাধিক মৃ’ত্যু হয়।

এরপর গত ১৩ আগস্ট মৃ’ত্যুর সংখ্যা ২০০ এর নিচে নামা শুরু করে। দীর্ঘদিন শতাধিক থাকার পর গত ২৮ আগস্ট মৃ’ত্যু ১০০ এর নিচে নেমে আসে।২০২০ সালের এপ্রিলের পর গত বছরের ১৯ নভেম্বর প্রথম ক’রো’নাভাই’রাস মহামা’রিতে মৃ’ত্যুহীন দিন পার করে বাংলাদেশ। সর্বশেষ দ্বিতীয়বারের মতো ৯ ডিসেম্বর মৃ’ত্যুশূন্য দিন পার করেছে দেশ।

ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণেই ছিল। কিন্তু এরমধ্যেই বিশ্বে শুরু হয় ওমিক্রন ঝড়। ৩ জানুয়ারি দৈনিক শনাক্তের হার ৩ শতাংশ এবং ৬ জানুয়ারি তা ৫ শতাংশ ছাড়ায়। এরপর থেকে সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়তে শুরু করে। সম্প্রতি সে পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

Back to top button