জাতীয়

বিএনপির ২১ নেতার পদত্যাগ

ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন না করার প্রতিবাদে নওগাঁর রানীনগর উপজে’লার বড়গাছা ইউনিয়ন বিএনপির সদ্য ঘোষিত আহ্বায়ক কমিটি থেকে ২১ জন পদত্যাগ করেছেন। গত ৫ মা’র্চ বড়গাছা ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

ইউনিয়ন বিএনপির একাংশের নেতাকর্মীর অ’ভিযোগ- ইউনিয়ন বিএনপির নেতাকর্মীদের মতামত না নিয়ে গত ৫ মা’র্চ উপজে’লা বিএনপির কয়েকজন নেতা তাদের পছন্দের ব্যক্তিদের নিয়ে বড়গাছা ইউনিয়ন বিএনপির ২৮ সদস্যের একটি আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেন। পূর্বের কমিটির বিলুপ্ত না করে নতুন করে কমিটির অনুমোদন দেওয়া গঠনতন্ত্র বিরোধী।

গত ১০ মা’র্চ রাণীনগর উপজে’লা ও জে’লা বিএনপির আহ্বায়কের কাছে বড়গাছা ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি থেকে ওই ২১ নেতা পদত্যাগপত্র জমা দেন।

পদত্যাগপত্রে তারা পদত্যাগের কারণ হিসেবে বলেন, ২০১৯ সালের ৩০ অক্টোবর মহরম আলীকে আহ্বায়ক করে বরগাছা ইউনিয়ন বিএনপির ৩২ সদস্যের একটি আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেয় উপজে’লা বিএনপি। কিন্তু ওই কমিটি বিলুপ্তি না করেই এবং ইউনিয়ন বিএনপির অধিকাংশ নেতাকর্মীদের মতামত না নিয়ে গত ৫ মা’র্চ উপজে’লা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মোশাররফ হোসেন স্বাক্ষরিত ২৮ সদস্যের নতুন একটি আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

এই কমিটিতে অনেক ত্যাগী ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। এছাড়া পূর্বের কমিটি বিলুপ্ত না করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা গঠনতন্ত্র বিরোধী। নতুন ঘোষিত কমিটির আহ্বায়ক হয়েছেন বিকাশ চন্দ্র। তিনি উপজে’লা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। পূর্বের কমিটি বিলুপ্ত না করে নতুন কমিটি ঘোষণা এবং ত্যাগী ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের মূল্যায়ন না করে কমিটি গঠনের প্রতিবাদে তারা আহ্বায়ক কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন।

ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি থেকে পদত্যাগ করা নেতাকর্মীরা হলেন- রেজাবুল হক, জাইদুল ই’স’লা’ম, মকছেদ আলী, আমিনুল ই’স’লা’ম, শাহ’জাহান আলী, আবু রায়হান, আরজ উদ্দীন, মোফাজ্জল হোসেন, আওরঙ্গজেব প্রামানিক, সাজ্জাদ হোসেন, সাইদুর রহমান, সোহেল, আশিক, নিরেন চন্দ্র, আব্দুল জাব্বার, শুক্কর, মোতা’লেব হোসেন, মনছুর, মজিদ মন্ডল, নাছির উদ্দিন ও মোজাম্মেল হক।

বড়গাছা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সদ্য ঘোষিত আহ্বায়ক কমিটির সদস্য রেজাবুল হক বলেন, কমিটি ঘোষণার আগে ইউনিয়ন বিএনপির অধিকাংশ নেতার সঙ্গে কোনো আলোচনাই করা হয়নি। হঠাৎ করে একদিন ফেসবুকে দেখছি নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। পূর্বের কমিটির বিলুপ্ত না করে নতুন কমিটির অনুমোদন এবং উপজে’লা বিএনপির একজন সদস্যকে ইউনিয়ন কমিটির মূল দায়িত্ব দেওয়া গঠনতন্ত্র বিরোধী। এই কমিটি আম’রা মানি না।

২০১৯ সালে ঘোষিত ৩২ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক মহরম আলী বলেন, আমা’র কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা না করেই আবার একটি নতুন কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এটি কেমন করে সম্ভব। যেখানে গঠনতন্ত্র মানা হয় না, ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হয় না সেখানে আমি নিজেকে জড়াতে চাই না।

উপজে’লা বিএনপির আহ্বায়ক রোকনুজ্জামান খাঁন বলেন, পূর্বের কমিটি ছিল অকার্যকর। তাই ওই ইউনিয়নে দ্রুত একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করার লক্ষ্যে নিয়ম মেনে নতুন করে একটি আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। থা’না বিএনপি দলের গঠনতন্ত্র মেনেই সব কাজ করেছে। যারা পদত্যাগ করেছেন, তারা রাগ-ক্ষোভ থেকে এটা করেছেন। ইতোমধ্যে কয়েকজন পদত্যাগপত্র ফিরিয়ে নেতা সম্মত হয়েছেন।

জে’লা বিএনপির আহ্বায়ক হাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি আম’রা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। সকল পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সমঝোতা করার চেষ্টা করা হচ্ছে। দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম যেন ব্যাহত না হয়, সে ধরনের কোনো কর্মকা’ণ্ড চলতে দেওয়া হবে না।

Back to top button