জাতীয়

মৃ’ত্যুর আগে আমীর খসরুকে যা বলেছিলেন মওদুদ

সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহম’দের মৃ’ত্যু স্বাভাবিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, মওদুদ আহম’দের মৃ’ত্যু হয়েছে মানসিক টেনশনে।বুধবার নোয়াখালীর কবিরহাট মডেল হাইস্কুলের হলরুমে উপজে’লা বিএনপির উদ্যেগে ব্যারিস্টার মওদুদ আহম’দের মৃ’ত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত স্বরণ সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।

আমীর খসরু বলেন, মৃ’ত্যুর তিন মাস আগে মওদুদ আহম’দ আমাকে বলেছিলেন, কিছু দিনের মধ্যে কয়েকটি মা’ম’লায় তাকে ১০ বছরের জন্য জে’লে পাঠানো হতে পারে। এতে বোঝা যায় তার মৃ’ত্যু স্বাভাবিক মৃ’ত্যু নয়, তার মৃ’ত্যু হয়েছে মানসিক টেনশনে। সরকার তার বাড়ি দখল করে নিয়ে গেছে; তাকে বিভিন্নভাবে লা’ঞ্ছিত করেছে। তিনি সব সময় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিষয়ে সোচ্চার ছিলেন। মওদুদ ভাই অব্যাহতভাবে গণতন্ত্রের সংগ্রামে লিপ্ত ছিলেন।

আমীর খসরু বলেন, একটি জবাবদিহি সরকার ব্যবস্থা না হলে এ দেশের জনগণের আর কোনো মুক্তি নেই। সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে-এই জন্যই এ সরকারকে বিদায় করতে হবে। এ সরকার জনগণের আস্থাকে সম্পূর্ণরূপে বিক্রি করে দিয়েছে। এই জনগণের আস্থাকে ফিরিয়ে আনতে হলে শেখ হাসিনার বদলে কেয়ারটেকার সরকার এবং ইভিএমের বদলে ব্যালট পেপার নির্বাচন দিতে হবে। নতুবা এর সমাধান হবে রাজপথে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ এখন কোন পথে যাচ্ছে-তা এই জনগণকেই দেখতে হবে।আমীর খসরু বলেন, সরকার সাংবাদিকসহ সব পেশাজীবীদের নি’র্যা’তন চালাচ্ছে, দীর্ঘ সময়েও সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হ’ত্যার বিচার না করে আইনের শাসনকে ভূলুণ্ঠিত করেছে। এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি নিজের দল ও বিভিন্ন দলের মধ্যে বিভেদ ও মতভেদ ভুলে সবাইকে আ’ন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য নিজের দলসহ সব বিরোধী দলের প্রতি আহ্বান জানান।

বিএনপির এই নেতা বলেন, মওদুদ আহম’দ রাজনীতি করেও ১৫টি বই লিখেছেন। একজন মানুষ রাজনীতি করে ১৫টি বই লিখতে পারে? এটা একটা অবিশ্বা’সের বিষয়। রাজনীতি করে মানুষ খাওয়া দাওয়ারই সময় পান না, ঘুমানোর সময় পান না, বই কোথা থেকে লিখবেন। তিনি ছিলেন একজন অনন্য ব্যক্তিত্ব।

Back to top button