জাতীয়

ভবিষ্যতে গ্রামের মেয়েরা উঠান ঝাড়ু দিবে রোবট দিয়ে

এবার ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, আমি বিশ্বা’স করি ভবিষ্যতে গ্রামের বাড়িতে মেয়েরা উঠান ঝাড়ু দেওয়ার জন্য রোবট ব্যবহার করবে। গ্রামের বাড়িতে ওয়াইফাই কানেকশন থাকবে। সেই ওয়াইফাই দিয়ে রোবট পরিচালনা করা হবে। গতকাল বুধবার ১৬ মা’র্চ রাত ১০ টার দিকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টার (বিআইসিসি) হলেসার্ভিস প্রোভাইডারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আ’ই’এ’সপিএবি) এর নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের অ’ভিষেক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ অ’প্রত্যাশিত। তারা যে কা’ণ্ড করেছে, দেশের বহু পন্ডিত ব্যক্তি হিসাব করে বের করতে পারেনাই মানুষের ইন্টারনেটের চাহিদা কোন পর্যায়ে যাবে। ভবিষ্যতের দিকে তাকালে, এখন পর্যন্ত আম’রা ৯৫ থেকে ৯৩ শতাংশ মোবাইল ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করি। আপনারা মনে করছেন দেশের জনগণ ফেসবুক ব্রাউজ করে তাদের জীবন কাটিয়ে দিবে। এখন মানুষ হয়তোবা এমবিপিএস ইন্টারনেট হিসাব করে ব্যবহার করছে। ভবিষ্যতে এই জনগণ আপনাদের কাছ থেকে জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ চাইবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, আগামী পৃথিবী হবে সাইবার নির্ভর। আমাদের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে ফাইভ-জি গতির ব্যান্ডউইথ প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া। দেশের ১৮ কোটি জনসংখ্যার ১৮ কোটি মানুষের কাছে ইন্টারনেট পৌঁছে দিতে হবে।

এদিন বিশেষ অথিতির বক্তবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযু’ক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের আর্কিটেক্ট সজীব ওয়াজেদ জয়। ১৩ বছরে ডিজিটাল বাংলাদেশের সফলভাবে বাস্তবায়ন হলো। সকল ডিজিটাল পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মূল স্থপতি হচ্ছেন আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ক’রো’নাকালে ১ লাখ ৭০ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৫ কোটি ছাত্র-ছা’ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে পারেনি। কিন্তু তাদের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ছিল না। কারণ দেশে ইন্টারনেট মাধ্যম ব্যবহার করে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে গেছে তারা।

 

Back to top button