জাতীয়

বক্তব্যের শেষে ‘জয় বাংলা’বললেন না ইউএনও

বরিশালের উজিরপুর উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা ফারিহা তানজিনের বি’রু’দ্ধে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শি’শু দিবস অনুষ্ঠানে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান না দেওয়ার অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় উপজে’লা প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শি’শু দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্য শেষে জয় বাংলা না বলে বক্তব্য শেষ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা, সুশীল সমাজের নেতারা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অ’তিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. শাহে আলম। উপস্থিত ছিলেন- উপজে’লা পরিষদের চেয়ারম্যান আ. মজিদ সিকদার বাচ্চু, উপজে’লা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম জামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন বেপারি, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জয়দেব চক্রবর্তীসহ কর্মক’র্তারা।

অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য, উপজে’লা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, ওসি, ভাইস চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক তাদের বক্তব্য শেষে জয় বাংলা বলে বক্তব্য শেষ করেন। শুধু উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা ফারিহা তানজিন অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে একবারও জয় বাংলা উচ্চারণ করেননি এবং জয় বাংলা না বলেই বক্তব্য শেষ করে সভা’র সমাপ্তি করেন।

এতে উপস্থিত অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। উপজে’লা পর্যায়ের একজন দায়িত্বশীল কর্মক’র্তা সরকারি প্রজ্ঞাপনকে বৃদ্ধাঙ্গু’লি দেখানোর কারণে তার দায়িত্বহীনতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে উপস্থিত নেতাদের মধ্যে।

এছাড়া অনুষ্ঠানের ব্যানারে বিশেষ অ’তিথির স্থানে উপজে’লা পরিষদের চেয়ারম্যানের নামের পরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) জয়দেব চক্রবর্তীর নাম দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন উপস্থিত অনেক কর্মক’র্তারা। ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এমন একাধিক কর্মক’র্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে তারা নিজেদের নাম প্রকাশ না করার শর্ত দেন।

অ’ভিযোগের বিষয়ে জানতে ফারিহা তানজিনের মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে নিজের দোষ স্বীকার করে বলেন, জয় বাংলা স্লোগান নতুন প্রজ্ঞাপন হয়েছে, আমিও নতুন এসেছি এখানে। তাই ভুল হয়েছে।

ব্যানারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) জয়দেব চক্রবর্তীর নাম বিশেষ অ’তিথির দ্বিতীয় স্থানে আসার ব্যাপারে বলেন, আমা’র ব্যানার দেখতে হবে। দেখে বলতে পারব কিভাবে হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২ মা’র্চ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশিত সরকারি গেজেটে নির্দেশ দিয়ে বলা হয়, রাষ্ট্রীয় সব অনুষ্ঠানে সরকারি কর্মক’র্তা-কর্মচারীদের বক্তব্যের শেষে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিতে হবে। প্রজ্ঞাপনের ‘খ’ নম্বরে বলা হয় ‘সাংবিধানিক পদাধিকারীগণ, দেশে ও দেশের কর্ম’রত সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও সংবিধিবদ্ধ সংস্থার কর্মক’র্তা-কর্মচারীরা সব জাতীয় দিবস উদযাপন এবং অন্যান্য রাষ্ট্রীয় ও সরকারি অনুষ্ঠানে বক্তব্যের শেষে ‘জয় বাংলা’স্লোগান উচ্চারণ করিবেন।’চলতি বছরের ৬ মা’র্চ উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা হিসেবে ফারিহা তানজিন উজিরপুরে যোগদান করেন।

Back to top button