জাতীয়

২ সন্তানকে হ’ত্যা, সেই মা কারাগারে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজে’লার সেই দুই শি’শুকে হ’ত্যার ঘটনায় মা লিমা খাতুনকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জে’লহাজতে পাঠিয়েছেন আ’দা’লত।এদিকে লিমা আ’ট’কের খবরে লিমা’র কথিত প্রে’মিক সফিউল্লাহ গা ঢাকা দিয়েছেন। তাকে গ্রে’প্তা’রে অ’ভিযান অব্যাহত রেখেছে পু’লিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে হ’ত্যার দায় স্বীকার করে আ’দা’লতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানব’ন্দি দেন লিমা। জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম দ্বিতীয় আ’দা’লতের বিচারক আফরিন আহমেদ হ্যাপী তার জবানব’ন্দি গ্রহণ করেন। পরে আ’দা’লত তাকে জে’লহাজতে পাঠান। এর আগে বুধবার রাতে লিমাকে গ্রে’প্তা’র করে পু’লিশ।

এদিকে দুই শি’শু সন্তানকে হ’ত্যায় ঘটনায় স্ত্রী’ লিমা বেগম ও তার প্রে’মিকের সর্বোচ্চ শা’স্তি চেয়েছেন স্বামী ইসমাঈল হোসেন। ইসমাইল একজন দৃষ্টি ও শা’রীরিক প্রতিব’ন্ধী। সিলেটে একটি ইটভাটায় শুধু স্লিপ বিতরণের কাজ করেন তিনি।

ইসমাইল বলেন, আমা’র স্ত্রী’ লিমা বেগম বাড়িতে থাকে। পাশাপাশি একটি চাতাল কলে কাজ করে। আমি দূরে থাকায় যোগাযোগ করার জন্য লিমাকে একটি ফোন ও সিম দিয়েছিলাম। কয়দিন পর সে আমা’র দেওয়া সেই সিম পরিবর্তন করে ফেলে। আমি তাকে জিজ্ঞাসা করি কেন, এই সিম কেন পরিবর্তন করা হলো। তখন মিল সর্দার সফিউল্লাহ ওরফে সফো সর্দার বলেন, তোমা’র নম্বর অনেকে জানে, তোমা’র স্ত্রী’কে অনেকে ফোন করে বির’ক্ত করে, তাই আমি একটি সিম দিয়েছি। এদিকে লিমা’র কথিত প্রে’মিক সফিউল্লাহকে গ্রে’প্তা’রের জন্য পু’লিশ কাজ করছে বলে আশুগঞ্জ থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) আজাদ রহমান জানিয়েছেন।

Back to top button