জাতীয়

৮ ঘণ্টার ব্যবধানে কারাগারে দুই কয়েদির মৃ’ত্যু

নাটোরে ৮ ঘণ্টা ব্যবধানে দুই কয়েদির মৃ’ত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে জে’লা কারাগারে ওই দুইজন অ’সুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য তাদের নাটোর সদর হাসপাতা’লে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃ’ত ঘোষনা করেন।

মা’রা যাওয়া কয়েদিরা হলেন- নাটোর সদর উপজে’লার দিঘাপতিয়া গ্রামের ওসমান শেখ (৩৩) ও পাবনার চক ভা’রাড়া গ্রামের আনছার শেখ (৪৬)। নাটোর জে’লা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খালিদ হাসান শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে ম’র্গে গিয়ে লা’শ দুটি পর্যবেক্ষণ করেন।

নাটোর জে’লা কারাগার ও নি’হ’ত দুজনের পরিবার সূত্রে জানা যায়, নাটোরের লালপুরের ২০২১ সালের একটি হ’ত্যা মা’ম’লায় কারাগারে যান আনছার শেখ এবং গত ১৪ মা’র্চ মা’দ’ক মা’ম’লায় ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লতের মাধ্যমে কারাগারে আসেন নাটোর সদর উপজে’লার দিঘাপতিয়া গ্রামের মৃ’ত নুরু শেখের ছে’লে ওসমান শেখ। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে ওসমান শেখ অ’সুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতা’লে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।

এদিকে শুক্রবার ভোর প্রায় ৪টার দিকে আনছার শেখ হঠাৎ করেই অ’সুস্থ্য হয়ে পড়ে। পরে তাকেও চিকিৎসার জন্য নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতা’লে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃ’ত ঘোষণা করেন।

এদিকে শুক্রবার দুপুরে নি’হ’ত ওসমান শেখের ভগ্নিপতি মুকুল হোসেন অ’ভিযোগ করে বলেন, দুই সন্তানের জনক ওসমান শেখের কিছু সমস্যা থাকায় পরিবারে আলোচনা করে তারাই ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়ে ছিলেন। সেখানে ওসমান শেখের কাছে এক পুড়িয়া গাঁজা পাওয়ায় পু’লিশ তাকে নি’র্যা’তন করে হ’ত্যা করেছে।

জে’ল সুপার আব্দুর রহিম নি’হ’ত ওসমান শেখের কাছে গাঁজা পাওয়ার কথা স্বীকার করলেও নি’র্যা’তন করার অ’ভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, কোন নি’র্যা’তন নয়, উভ’য় ব্যক্তি অ’সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক ভাবেই মৃ’ত্যুবরণ করেছেন।

Back to top button