জাতীয়

অ’তিরিক্ত দাম রাখার খেসারত

শবে বরাত উপলক্ষে সিলেটের গো’লাপগঞ্জের প্রধান বাজার বকটিসহ গ্রাম-গঞ্জের আনাচে-কানাচে গরু জবাই করা হয়। উপজে’লার সবকটি বাজারে গরুর মাংসের দাম কয়েকগুণ বৃদ্ধি করে দিনভর বিক্রি করা হয়।

অসাধু ব্যবসায়ীদের অ’পতৎপরতা নিয়ে ক্রেতাদের মধ্য সৃষ্টি হয় বিরূপ প্রতিক্রিয়া। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লেখালেখি করেন। এতে টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের।

শুক্রবার বিকেলে তাৎক্ষণিক মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে দাম বেশি রাখা মাংস ব্যবসায়ীদের করা হয় জ’রিমানা। ফলে তটস্থ হয়ে পড়েন ব্যবসায়ীরা। অনেকে এ সময় দোকান ছেড়ে পালিয়ে যান।

জানা যায়, উপজে’লার সদরসহ ঢাকাদক্ষিণ, ভাদেশ্বর, হেতিমগঞ্জসহ সবকটি বাজারে গরু মাংসের দাম বৃদ্ধি করে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হয়। খবর পেয়ে শুক্রবার বিকালে ঢাকাদক্ষিণ ও পৌর সদরের চৌমুহনীতে ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লত পরিচালনা করেন উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. গো’লাম কবির। ৫টি গরুর মাংসের দোকানে ৮ হাজার ৫শ টাকা জ’রিমানা করা হয়।

উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা মো. গো’লাম কবির শুক্রবার রাতে যুগান্তরকে জানান, নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দরে গরুর মাংস বিক্রি করার অ’প’রা’ধে এবং দোকানে মূল্য তালিকা না থাকায় এ জ’রিমানা করা হয়। তাছাড়া অ’পর ২টি মাংসের দোকানদারকে সতর্ক করা হয়।

অ’ভিযানকালে সহযোগিতা করেন থা’নার পু’লিশ ছাড়াও উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যানিটারি ইন্সপেক্টর খালেদ আহম’দ।

এ সময় পেশকারের দায়িত্বে থাকা মো. লোকমান হোসেন এ তথ্যটি নিশ্চিত করেন।

Back to top button