জাতীয়

আ.লীগের সাথে এখন আমাদের কোন জোট নেই

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু এমপি বলেছেন, ‘দেশের মানুষ ভালো নেই। মানুষ খুব ক’ষ্টে আছে। কোভিডের কারণে মানুষের চাকরি গেছে, ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ হয়েছে। এর মধ্যেই সরকার জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। এত দাম! মানুষের সহ্যের বাইরে, ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। অথচ সরকারের মন্ত্রীরা বিষয়টি নিয়ে হাস্যকর কথা বলছেন। বাণিজ্যমন্ত্রী বলছেন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস তথা চাল-ডালের অভাব নাই। অভাব নাই তাহলে বাবা মূল্যটা বাড়লো কেন? যারা মূল্য বাড়ায় তাদের কি এতই ক্ষমতা? তোমা’র প্রশাসন আছে, পু’লিশ আছে, আর্মি আছে, এগুলো নিয়ে বসে আছো কেন। তারমানে তুমিও কি ওই সিন্ডিকে’টের সাথে জড়িত? তা না হলে ব্যবস্থা নিচ্ছো না কেন? খাদ্যমন্ত্রী বললেন, দেশে এযাবৎকালের সবচেয়ে বেশি খাদ্য মজুদ আছে। প্রায় ২০ লক্ষ টন! তাহলে সাধারণ মানুষ খাদ্য পাচ্ছে না কেন।

তাহলে কি মনে করবো চালের ব্যবসায়ীদের সাথে আঁতাত করে আপনি কোটি কোটি টাকার মালিক হচ্ছেন?’ শুক্রবার (১৮ মা’র্চ) বিকালে নিজ নির্বাচনী এলাকা কি’শোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজে’লার উরদিঘী দাখিল মাদ্রাসায় এক নতুন ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আলোচনা সভায় প্রধান অ’তিথির বক্তব্যে জা’পা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু এমপি এ মন্তব্য করেন। মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, ‘দেশের পাঁচ কোটি মানুষ বেকার। লক্ষ লক্ষ ছে’লেমেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মাদ্রাসায় পড়ালেখা করে বসে আছে, চাকরি নাই। সরকারের এ ব্যাপারে কোন চিন্তা-ই নেই। তাদের শুধু ক্ষমতায় থাকার লড়াই। জনগণের দিকে কোনো লক্ষ্য নেই তাদের।’ জাতীয় পার্টির অবস্থান ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সাথে আমাদের নির্বাচনী জোট ছিল। এখন আমাদের কোন জোট নেই। কিসের আবার মহাজোট-ফোট। আম’রা বিরোধী দলে আছি। সরকার অন্যায় করলে এটার প্রতিবাদ করতে হবে।’

‘এই সরকার ৪০ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। ১ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে খেয়ে ফেলেছে তাদের বড় বড় নেতারা। এগুলোর হিসাব আম’রা চাই। সোজা কথা, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি যদি না কমাতে পারে, সরকার সুশাসন যদি কায়েম না করে, দু’র্নী’তি বন্ধ না করে জাতীয় পার্টিও জনগণের জন্য রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে। আর তখন এ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত না করে ঘরে ফিরবে না।’ বললেন চুন্নু।

আওয়ামী লীগ তিন-চারবার জাতীয় পার্টির সম’র্থনে ক্ষমতায় এসেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এখন বাঘের পিঠের মধ্যে বসেছে। ক্ষমতা হারা হলে, আর বিএনপি-জামাত ক্ষমতায় এলে, তাদের যে কী অবস্থা হবে আল্লাহই জানেন। আওয়ামী লীগ কর্মীদের বাড়িছাড়া, ঘর ছাড়া করবে। পালানোর জায়গা পাবে না তারা। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে বিএনপিও নিরাপদ আওয়ামী লীগও নিরাপদ। সে লক্ষ্যেই জাতীয় পার্টি কাজ করে যাচ্ছে।’ আগামীতে জাতীয় পার্টি ৩০০ আসনে নির্বাচন করবে বলে জানিয়ে দেন তিনি।

উরদিঘী দাখিল মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত সভায় চুন্নু আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু মা’রা যাওয়ার চার বছর পর চার-পাঁচটা ভাগ হয়ে গেছিল আওয়ামী লীগ। মনে আছে? মিজান গ্রুপ, বাকশাল গ্রুপ আরো কত কি। এই সরকার ক্ষমতাচ্যুত হলে আর ক্ষমতায় আসতে পারবে না।’ চুন্নু বলেন, ‘আমাদের মাটির নিচে দিয়া টানেল দরকার নাই মাটির উপরে দিয়া ট্রেন দরকার নাই। আমা’র দরকার লক্ষ লক্ষ বেকারের চাকরি। মানুষের চিকিৎসার জন্য প্রত্যেক উপজে’লায় বড় বড় হাসপাতাল দরকার।’

করিমগঞ্জ উপজে’লা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি আবু জাহেদ মাস্টারের সভাপতিত্বে ও গুনধর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল হক আব্দুল আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, করিমগঞ্জ উপজে’লা পরিষদের সাবেক ভা’রপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন খান দিদার, উপজে’লা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, উপজে’লা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল সাকির নুরু সিকদার, গুনধর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি শফিকুল ই’স’লা’ম ভূঁইয়া রতন প্রমুখ।

Back to top button