জাতীয়

সাজার বদলে ৭০ শি’শু-কি’শোরকে ফুল ডায়েরি দিয়ে বাড়ি পাঠালেন বিচারক

ছোট ছোট অ’প’রা’ধের দায়ে ৫০টি মা’ম’লার অ’ভিযু’ক্ত ৭০ জন শি’শুকি’শোরকে সাজা না দিয়ে জাতীয় পতাকা, ফুল আর ডায়রী উপহার দিয়ে পরিবারে কাছে ফিরিয়ে দিয়েছেন না’রী ও শি’শু নি’র্যা’তন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ জাকির হোসেন। রায়ের ফলে তারা পরিবারের সঙ্গে স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারবে।

সোমবার (২১ মা’র্চ) দুপুরে আ’দা’লতের এজলাসে তাদের অ’ভিভাবকদের সামনে বিচারক এরায় ঘোষণা করেন। নিয়মিত পড়াশুনা ভালো কাজ করা, সবার সংগে ভালো আচরণ করা, গুরুজনের আদেশ মেনে চলা, বাবা মায়ের সেবা করা, গাছ লাগানো ও পরিচর্চা করা, ধ’র্মগ্রান্থ পাঠ করা, অসৎ সংগ ত্যাগ করা মা’দ’ক থেকে দূরে থাকাসহ ৯ টি শর্তে মুক্তি পায় শি’শু কি’শোররা।

এছাড়া ভবিষ্যতে কোনো অ’প’রা’ধের সঙ্গে নিজেকে না জড়ানোর শর্তে এসব মা’ম’লা নিষ্পত্তি করে দেয়া হয়। এসব শর্ত পালন হচ্ছে কিনা তা আগামী এক বছর একজন প্রবেশন কর্মক’র্তা পর্যবেক্ষণ করবেন এবং প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর আ’দা’লতকে অবহিত করবেন।

আ’দা’লতের এজলাসে হাজির ৭০ জন অ’ভিযু’ক্ত শি’শু-কি’শোর। সাজার বদলে আজ তারা জাতীয় পতাকা, ফুল ও ডায়েরী নিয়ে বাড়ি ফিরে গেলেন। দীর্ঘদিন মা’ম’লার কারণে আ’দা’লতে হাজিরা দেয়ার ফলে শি’শুদের লেখাপড়া, মানসিক স্বাস্থ্যসহ স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হচ্ছিল। অ’ভিযু’ক্ত সবুর মিয়া বলেন, তাকে মি’থ্যে মা’ম’লায় আ’সা’মি করা হয়েছে। আজ সে মুক্ত হয়ে বাড়িতে যাচ্ছে। পরিবারের সাথে মিলেমিশে থাকবে সে।

দেলোয়ার হোসেন বলেন, মা’ম’লার কারণে সে নিয়মিত স্কুলে যেতে পারেনি। তার লেখাপড়ার ক্ষতি হয়েছে। আজ থেকে আবার সে লেখাপড়া করবে। তাছাহক আহমেদ বলেন, সে মিথ্যা মা’ম’লায় অ’ভিযু’ক্ত হয়েছিল। আজ সে মুক্তি পেয়েছে। আ’দা’লতের ৯ টি শর্ত মেনে চলবে। বাবুল মিয়া বলেন, শি’শুদের আ’সা’মি করার সময় মা’ম’লার ত’দ’ন্ত জেন নিরপেক্ষ হয় সে দিকে খেয়াল রাখার দাবি করেন।

শি’শুদের অ’ভিভাবকরা বলেন আজ থেকে তারা শি’শুকি’শোরদের দেখভালো করবেন। আ’দা’লত রায়ের পর্যবেক্ষণে বলেন, শি’শু আ’দা’লতের একটি পরিবেশ রয়েছে আইন রয়েছে। সে অনুযায়ী বিচার হয়। আ’দা’লতের শর্তগুলো মেনে চলার আহ্বান জানান। কেউ শর্ত মেনে না চললে আবার মা’ম’লা চালু হবে। প্রবেশন কর্মক’র্তা বিষয় গুলো দেখ ভাল করবেন। একারণে যদি কোন শি’শুর কাছে কেউ অর্থ দাবি করেন তা আ’দা’লত কে জানাতে বলেন।

দেশের স্বাধীনতা দেশ প্রে’ম নিয়ে বেচে থাকার আহ্বান জানান। শি’শুরা আগামী দিনের বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে। শি’শুদের একজন ভাল মানুষ ও নাগরিক হয়ে গড়ে ওঠতে হবে।প্রবেশন কর্মক’র্তা শাহ মোঃ শফিউর রহমান বলেন, আ’দা’লতের আদেশ তারা মেনে চলছে কি না তিনি তা নিশ্চিত করবেন। আ’দা’লতের এমন উদ্যোগ পরিবারের সান্নিধ্যে এসব কোমলমতি শি’শুরা স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠবে এবং সুন্দর জীবন গঠনের সুযোগ পাবে।

শি’শু আ’দা’লতের অ’তিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট হাসান মাহবুব সাদী জানান, আ’দা’লতের এমন উদ্যোগ পরিবারের সান্নিধ্যে এসব কোমলমতি শি’শুরা স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠবে এবং সুন্দর জীবন গঠনের সুযোগ পাবে। আদেশে শি’শুরা পরিবারের সংগে স্বাভাবিক জীবন যাপনের সুযোগ পাবে। আ’দা’লতের বিচারক এর আগেও ৯৫ টি মা’ম’লার ১৩০ জন শি’শুকি’শোর ও দেড় শতাধিক দম্পতি কে মুক্তি দিয়ে পরিবারের সংগে থাকার সুযোগ করে দিয়েছেন।

এর আগেও তিন দফায় ১৩৩ জন শি’শুকে একইভাবে প্রবেশন দিয়ে মা’ম’লা থেকে নিষ্কৃতির মাধ্যমে তাদেরকে সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে প্রত্যাবর্তনে সুযোগ করে দেয়া এবং দেড় শতাধিক পরিবারকে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করে আপোষে তাদের মা’ম’লা সমূহ নিষ্পত্তি করে দেন এই বিচারক।

Back to top button