জাতীয়

দ্বাদশ নির্বাচনের আগে সংসদ অকার্যকর রাখতে বললেন ফরাসউদ্দিন

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে কাজী হাবিবুল আউয়ালের নির্বাচন কমিশন রেওয়াজ অনুযায়ী সবার মতামত নিতে সংলাপ করছে। দায়িত্ব নেওয়ার ১৫ দিনের মা’থায় গত ১৩ মা’র্চ প্রথম দফায় দেশের শিক্ষাবিদদের সঙ্গে বসে ইসি। সেই ধারাবাহিকতায় আজ (মঙ্গলবার) বিভিন্ন পেশাজীবীদের সঙ্গে সংলাপ করেছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

সংলাপে গিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাসউদ্দিন আহমেদ ইসিকে জাতীয় নির্বাচনের আগে সংসদ অকার্যকর করে রাখার বিষয়ে প্রস্তাব দিয়েছেন। ২০২৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে ৪ মাসের জন্য সংসদ অকার্যকর রাখতে সরকারকে পরাম’র্শ দেওয়ার জন্য ইসিকে প্রস্তাব করেন তিনি।

নির্বাচনকালীন প্রশাসন নিরপেক্ষ রাখার পরাম’র্শ দিয়ে তিনি বলেন, ভোটের সময় মূল ভরসা হলো মাঠ প্রশাসন। জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার ৪ মাস আগ থেকে ভোটের ২ মাস পর পর্যন্ত প্রশাসনে নিয়োগ-বদলি ইসির নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে।নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করার জো’র সুপারিশ করে সাবেক এই আমলা বলেন, ইভিএম সবসময় সব দেশে বিতর্কিত। ইসির উদ্দেশে তিনি বলেন, আস্থা অর্জন করতে পারলে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে। আস্থা অর্জিত হলে সবাই ভোটে আসবে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ই’স’লা’ম বলেন, সাহসী নির্বাচন কমিশন দরকার। গত কমিশনের অনেকগুলো দুর্বলতার একটি ছিল নিজেদের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব। তখন একজন আলাদা সংবাদ সম্মেলন করতেন। নিজেদের মধ্যে সমন্বয় না থাকলে আস্থা কমে যাবে। ইচ্ছা থাকলে ভালো নির্বাচন করা সম্ভব- তা নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দেখা গেছে।

সিপিডির সম্মানিত ফেলো মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এখনকার পরিবেশে যত সৎভাবেই কাজ করা হোক ইভিএমে ভোট হলে তার ফলাফল নিয়ে সংশয় তৈরি হবে। তিনি বলেন, নির্বাচন পর্যবেক্ষকেরা যাতে কাজ করতে পারেন নিশ্চিত করতে হবে। ভোটের আগে পরে ভোটারদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

Back to top button