জাতীয়

আ’লীগের আমলে বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্বের বিস্ময়

বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বোত্তম স্থান বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ই’স’লা’ম। এ দেশে অফুরন্ত সম্ভাবনা থাকায় দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগে আহ্বান জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার মাত্র ৫০ বছরে বিশেষ করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সময়কালে দেশে যে অভূতপূর্ব উন্নয়ন অর্জিত হয়েছে তা বিশ্বের বিস্ময়।বুধবার (২৩ মা’র্চ) সংযু’ক্ত আরব আমিরাতে ‘দুবাই এক্সপো-২০২০’- এ বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন পরিদর্শন এবং স্থানীয় সরকার বিভাগ আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অ’তিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়েছে। গ্রাম-গঞ্জে তথ্য-প্রযু’ক্তি ও ইন্টারনেট, পানিসহ জরুরি সেবা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ১০০টি অর্থনৈতিক জোন গড়ে তোলা হচ্ছে।তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ অ’ত্যন্ত পরিশ্রমী, বিনয়ী। বিদেশি বিনিয়োগকারীরা এসব অঞ্চলে (অর্থনৈতিক জোনে) বিনিয়োগের মাধ্যমে খুব সহ’জেই লাভবান হতে পারেন। বিদেশিদের জন্য ব্যবসা-বাণিজ্যের অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি এবং বিনিয়োগ বাড়াতে বাংলাদেশ সরকার যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বলেও জানান তিনি।

পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, মেট্রোরেলসহ মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশে যে অর্থনৈতিক পরিবর্তন আসবে তার ব্যাখ্যা তুলে ধরে মো. তাজুল ই’স’লা’ম বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট শহীদ না হলে ২০০০ সালের মধ্যেই দেশ উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হতো। বঙ্গবন্ধু তার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে না পারলেও তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সে স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথ তৈরি করে এগিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন, পানি ও স্যানিটেশন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কৃষিসহ সব ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জিত হয়েছে। আগের বাংলাদেশ আর এখনকার বাংলাদেশের মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। সারা’বি’শ্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। যদিও একটি গ্রুপ বাংলাদেশ স’ম্প’র্কে নেতিবাচক প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছে। কিন্তু তাদের ষড়যন্ত্র কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশ সরকার শহরের সব নাগরিক সেবা এবং আধুনিক সুযোগ-সুবিধা গ্রামে পৌঁছে দিতে কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দর্শন ‘আমা’র গ্রাম আমা’র শহর’ বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। ইতোমধ্যে বাড়িতে বাড়িতে বিদ্যুৎ, পানি ও স্যানিটেশন সেবা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সব সুবিধা গ্রামের মানুষের হাতের নাগালে পৌঁছে দেওয়া হবে।

সেমিনারে ভিশন ২০৪১: মেকিং বাংলাদেশ অ্যা ডেভেলপমেন্ট নেশন, মাই ভিলেজ মাই টাউন প্রোগ্রাম, রুর‌্যাল রোড ট্রান্সফরমেশন, ক্লাইমেট রেজিলেন্ট ওয়াটার সা’প্লাই এবং স্মা’র্ট আরবান ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট এর ওপর সংশ্লিষ্ট দপ্তর/অধিদপ্তর প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহম’দের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অ’তিথি ছিলেন সংযু’ক্ত আরব আমিরাতে নিযু’ক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্ম’দ আবু জাফর।এছাড়া, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী শেখ মোহাম্ম’দ মুহসিন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খানসহ স্থানীয় সরকার বিভাগ ও এর আওতাধীন প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মক’র্তা এবং দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Back to top button