জাতীয়

যু’দ্ধাপরাধ মা’ম’লায় জামায়াত নেতা খালেক মণ্ডলের মৃ’ত্যুদ’ণ্ড

মানবতাবিরোধী অ’প’রা’ধের মা’ম’লায় সাতক্ষীরা জে’লা জামায়াতের আমির ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল খালেক মণ্ডলসহ দুই জনের মৃ’ত্যুদ’ণ্ডের রায় দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।বৃহস্পতিবার (২৪ মা’র্চ) আন্তর্জাতিক অ’প’রা’ধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. শাহিনুর ই’স’লা’মের নেতৃত্বে তিন সদস্যের বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। এর আগে গত ২২ মা’র্চ রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করা হয়। মৃ’ত্যুদ’ণ্ডপ্রাপ্ত অ’পর আ’সা’মি হলেন— খান রোকনুজ্জামান। তিনি পলাতক রয়েছেন।

আ’দা’লতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল ও রেজিয়া সুলতানা চ’মন। আ’সা’মিদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুস সুবহান তরফদার ও গাজী এম এইচ তামিম। এ মা’ম’লার চার আ’সা’মির বি’রু’দ্ধে ২০১৫ সালের ৭ আগস্ট ত’দ’ন্ত শুরু হয়। ত’দ’ন্তে জ’ব্দ তালিকার সাক্ষীসহ মোট ৬০ জনকে সাক্ষী করা হয়।

এর আগে গত বছরের ১১ নভেম্বর মানবতাবিরোধী অ’প’রা’ধের মা’ম’লায় আব্দুল খালেক মণ্ডলসহ দুই জনের মা’ম’লার শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য অ’পেক্ষমান রাখা হয়।২০১৮ সালের ১৫ এপ্রিল সূচনা বক্তব্য এবং সাক্ষ্যগ্রহণের মাধ্যমে এ মা’ম’লার বিচার শুরু হয়।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৯ মা’র্চ এ মা’ম’লায় আনুষ্ঠানিক অ’ভিযোগ দাখিল করা হয়। মা’ম’লায় তখন চার জন আ’সা’মি ছিলেন। এর মধ্যে খালেক মণ্ডল কারাব’ন্দি। বাকি দুই জন মা’রা গেছেন। খান রোকনুজ্জামান এখনও পলাতক।আ’সা’মিদের বি’রু’দ্ধে হ’ত্যা,ধ,, র্ষ, ণ, আ’ট’ক, নি’র্যা’তনসহ মানবতাবিরোধী অ’প’রা’ধের অ’ভিযোগ আনে প্রসিকিউশন। যার মধ্যে ছয় জনকে হ’ত্যা, দুই জনকেধ,, র্ষ, ণ, ১৪ জনকে শা’রীরিক নি’র্যা’তনের অ’ভিযোগ রয়েছে।

২০১৫ সালের ১৬ জুন ভোরে সাতক্ষীরা সদর উপজে’লার খলিলনগর মহিলা মাদরাসায় নাশকতার উদ্দেশ্যে কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে গো’প’ন বৈঠকের অ’ভিযোগে আব্দুল খালেক মণ্ডলকে গ্রে’প্তা’র করে পু’লিশ। ওই বছরের ২৫ আগস্ট খালেক মণ্ডলের বি’রু’দ্ধে সাতক্ষীরায় দায়ের করা মানবতাবিরোধী অ’প’রা’ধের তিনটি মা’ম’লার মধ্যে শহীদ মোস্তফা গাজী হ’ত্যা মা’ম’লায় তাকে গ্রে’প্তা’র দেখায় ট্রাইব্যুনাল।শিমুলবাড়িয়া গ্রামের রুস্তম আলীসহ পাঁচ জনকে হ’ত্যার অ’ভিযোগে ২০০৯ সালের ২ জুলাই খালেক মণ্ডলের বি’রু’দ্ধে মা’ম’লা’টি করেন শহীদ রুস্তম আলীর ছে’লে নজরুল ই’স’লা’ম গাজী।

 

Back to top button