জাতীয়

স্বাধীনতা দিবসে স্মৃ’তিসৌধে হরতা’লের সম’র্থনে লিফলেট বিতরণ

স্বাধীনতা দিবসে সাভা’রের জাতীয় স্মৃ’তিসৌধে শ্রদ্ধা জানাতে আসা দর্শনার্থীদের মধ্যে আগামী ২৮ মা’র্চ সারা দেশে অধাবেলা হরতা’লের সম’র্থনে লিফলেট বিতরণ করেছে সিপিবি ও গণসংহতি আ’ন্দোলনসহ বাম গণতান্ত্রিক জোটের দলগুলো।

আজ শনিবার (২৬ মা’র্চ) সকাল থেকেই স্মৃ’তিসৌধে শ্রদ্ধা জানাতে থাকে রাজনৈতিক দলগুলো। পুষ্পবেদিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেওয়া শেষে সিপিবি, গণসংহতি আ’ন্দোলনসহ বাম গণতান্ত্রিক দলের নেতাকর্মীদের দেখা যায় জনসাধারণের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করতে। ঘণ্টাখানেক তারা লিফলেট বিতরণ করেন।

এর আগে ভোজ্য তেল, চাল, ডাল, পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি রোধ ও গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির মূল্যবৃদ্ধির অ’পতৎপরতা বন্ধের দাবিতে এই হরতা’লের ডাক দিয়েছিল বাম গণতান্ত্রিক জোট। সেই হরতা’লের সম’র্থনেই লিফলেট বিতরণ করে তারা।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্সকে নিজ হাতে তাদের লিফলেট বিতরণ করতে দেখা যায়। এ সময় তার সঙ্গে গণজাগরণমঞ্চের অন্যতম সংগঠক ও ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি লাকী আক্তারকে দেখা যায়। তিনিও সিপিবির লিফলেট বিতরণ করছিলেন।

সিপিবির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, আম’রা প্রতিদিন গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করছি। যেমন গতকালও আমি সদরঘাট, লক্ষ্মীবাজারে গণসংযোগ করেছি। প্রতিদিনই গণসংযোগ হচ্ছে। আজকেও স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় স্মৃ’তিসৌধে এসে আম’রা গণসংযোগ করছি মানুষের সঙ্গে। মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। এই ইস্যু, এই হরতাল জনগণের হরতাল। জিনিসপত্রের দাম বাড়লে সব জনগণের ওপর প্রভাব পড়ে। এমনি যারা বিএনপি, আওয়ামী লীগ করেন, তাদের ওপরও প্রভাব পড়ে। সবাই এই হরতা’লের প্রতি সম’র্থন জ্ঞাপন করেছেন।

হরতাল করতে কোনো চাপ বা হু’মকি আছে কি না জিজ্ঞেস করায় তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যে হু’মকি দিয়েছেন, সেই হু’মকির তোয়াক্কা না করেই আমা’র ধারণা, ২৮ তারিখে শান্তিপূর্ণ হরতাল পালিত হবে। সে ক্ষেত্রে যদি চাপ আসে জনগণ তা উপেক্ষা করবে। এই চাপ দেওয়ার ক্ষমতা কারো নেই। কারণ জনরোষ রুখতে কেউ পারবে না। কোনো রকম যদি চাপ দিতে আসে, জনগণই পাল্টা চাপ দিয়ে দেবে।

 

Back to top button