জাতীয়

তাদের নেত্রী নাকি এক নম্বর মুক্তিযোদ্ধা, হাস্যকর

রাজধানীর রাজারবাগ পু’লিশ অডিটোরিয়ামে পু’লিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন এ অনুষ্ঠানে ঢাকা মেট্রোপলিটন পু’লিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ই’স’লা’ম বলেছেন, ‘একটি পার্টির সিনিয়র নেতা বলা শুরু করেছেন, তাদের নেত্রী নাকি এক নম্বর মুক্তিযোদ্ধা। এর চেয়ে হাস্যকর…। কী আর বলব। সত্য দিবালোকের মতো স্পষ্ট।’

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে আলোচনা সভা, প্রকাশিতব্য স্মা’রকগ্রন্থ ‘অনশ্বর পিতা’র মোড়ক উন্মোচন এবং বঙ্গবন্ধুর জন্ম’দিন ও জাতীয় শি’শু দিবস ২০২২ উপলক্ষে শি’শু-কি’শোরদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত ‘রঙ তুলিতে আঁকি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ’ শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার ।

শনিবার বিকেলে পু’লিশের অ’তিরিক্ত আইজিপি (স্পেশাল ব্রাঞ্চ) পু’লিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মনিরুল ই’স’লা’মের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের দোষ হলো সত্য কথাটাও ঠিক মতো বলতে পারে না। অথচ একটা পার্টির সিনিয়র নেতারা মি’থ্যে বলতে বলতে সত্যে পরিণত করতে চান।’

স্বাধীনতা যু’দ্ধে পু’লিশের ভূমিকা স্ম’রণ করে তিনি বলেন, ‘রাজারবাগে পু’লিশ কনস্টেবল প্রথম গু’লি ছুড়েছিল। কে তাকে উজ্জীবিত করেছিল? অথচ একটি দলের নেতারা বলেন, মানুষ নাকি দিগভ্রান্ত হয়েছিল। তাহলে রাজারবাগের পু’লিশ, সারাদেশের পু’লিশ কীভাবে বুঝেছিল? জাতির পিতার ৭ মা’র্চের ভাষণে যেভাবে বলেছেন, এরপর ফরমালি আর স্বাধীনতার ঘোষণার তেমন কোনো প্রয়োজন ছিল না। সেই ভাষণ পু’লিশকে উজ্জীবিত করেছিল।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘বাংলাদেশ পু’লিশ প্রমাণ করেছে যে, আম’রা ৭ মা’র্চের ভাষণে শপথ নিয়েছিলাম দেশমাতৃকার জন্য প্রয়োজনবোধে র’ক্ত দেব, জীবন দেব এবং সেই সত্যের বহিঃপ্রকাশ কিন্তু সারা বাংলাদেশেই ঘটেছিল, শুধু রাজারবাগে নয়।’

কমিশনার বলেন, ‘রাজারবাগ থেকে ওয়ারলেসে সারাদেশে ঘোষণা হয়েছিল যে, আক্রমণ হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে ইপিআর, সব যায়গায় আক্রমণ হলো। যু’দ্ধের জন্য প্রস্তুতির চূড়ান্ত কাজটি পু’লিশের পক্ষ থেকে শুরু হয়েছিল। প্রায় প্রতিটি জে’লায় পু’লিশের অ’স্ত্র মানুষকে দেওয়া হয়েছিল। আমাদের হাবিলদাররা দলে দলে ছাত্রদের নিয়ে প্রশিক্ষণ দিয়েছিল। আমাদের স্বাধীনতা যু’দ্ধে যত পু’লিশ সদস্য জীবন দিয়েছে, আমা’র মনে হয় না বাংলাদেশের আর কোনো বাহিনীতে এত প্রা’ণহানি হয়েছে।’

 

Back to top button