জাতীয়

পল্টনে হরতাল সম’র্থকদের সঙ্গে পু’লিশের সং’ঘ’র্ষ, আ’হত অনেকে

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে পূর্বঘোষিত বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডা’কা অর্ধদিবসের হরতা’লে পু’লিশের সঙ্গে সং’ঘ’র্ষের ঘটনা ঘটেছে। আজ সোমবার (২৮ মা’র্চ) রাজধানীর পল্টন এলাকায় সিপিবি সভাপতি শাহ আলমের বক্তব্য শেষে পু’লিশের সঙ্গে কয়েকজন হরতাল সম’র্থকের বাক-বিতণ্ডা থেকে সং’ঘ’র্ষ বাঁধে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পু’লিশ লা’ঠিচার্জ, টিয়ার শেল, রাবার বুলেট ও জলকা’মান ব্যবহার করে। এ ঘটনায় পু’লিশের ছোড়া রাবার বুলেটে হরতাল সম’র্থক ও সাংবাদিকসহ অনেকে আ’হত হয়েছেন।একইসঙ্গে, হরতাল সম’র্থকদের ছোড়া ইট-পাট’কেলে কয়েকজন পু’লিশ সদস্য আ’হত হয়েছেন।
রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় হরতা’লের সম’র্থনে মিছিল বের হয়। পল্টন ছাড়াও গু’লিস্তান, মিরপুর, মোহাম্ম’দপুরসহ অনেক স্থানে বি’ক্ষো’ভ মিছিল হয়। এসময় মিছিল থেকে অনেককে আ’ট’ক করেছে পু’লিশ।

বাম জোটের সমন্বয়ক সাইফুল হক বলেন, আম’রা শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালন করছি। কোনো যানবাহন জো’র করে আ’ট’কাচ্ছি না। হরতা’লে শ্রমজীবী মানুষদেরও সম’র্থন আছে। সরকার যদি জনগণের দাবি না মানে তাহলে আরও কঠোর কর্মসূচি আসবে। তিনি অ’ভিযোগ করে বলেন, হরতাল পালনে কোথাও কোথাও হা’ম’লা হচ্ছে। তার দাবি, সরকার পেটুয়া বাহিনী দিয়ে তাদের ওপর হা’ম’লা করাচ্ছে।

নিত্যপণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি প্রতিরোধ এবং গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির দাম বাড়ানোর তৎপরতা বন্ধের দাবিতে আজ সারা দেশে আধা বেলা হরতাল পালনের ডাক দেয় বাম গণতান্ত্রিক জোট। হরতাল কর্মসূচিতে ৯ দফা দাবি তুলেছে গণতান্ত্রিক বাম জোট। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- দেশের গরিবদের জন্য রেশনিং ব্যবস্থা চালু করা, সারা দেশে ন্যায্যমূল্যের দোকান খোলা, কৃষিবিদ ট্রাকের সংখ্যা ও খাদ্যপণ্যের দোকান বাড়ানো। এলপিজিসহ গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির মূল্য বৃদ্ধি প্রত্যাহার করা। মূল্যবৃদ্ধির গণশুনানি বাতিল করে হাট-বাজার ও সুপার মা’র্কে’টে নজরদারি ও তাদের তদারকি বৃদ্ধি করা।

Back to top button