জাতীয়

দুদকের শরীফকা’ণ্ডে ত’দ’ন্ত চান মেনন

দু’র্নী’তি দমন কমিশনের (দুদক) উপসহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিনের চাকরিচ্যুতিকে কেন্দ্র করে সংস্থাটির সার্বিক কর্মকা’ণ্ড নিয়ে ত’দ’ন্তের দাবি করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, দুদক দু’র্নী’তিবাজদের আড়াল করতেই উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিনকে চাকরিচ্যুত করেছে। তাদের কর্মকা’ণ্ডকে খতিয়ে দেখতে সংসদীয় ত’দ’ন্ত কমিটি গঠন করুন। জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন মেনন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটেছে। কিন্তু আমাদের দেশে দু’র্নী’তি চরম চ্যালেঞ্জ হিসেবে সামনে এসেছে। লাভের গুড় পিঁপড়ায় খেয়ে ফেলছে। প্রধানমন্ত্রী দু’র্নী’তির বি’রু’দ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন, এটা স’ন্দেহ নেই। দু’র্নী’তি দমন ও অনুসন্ধানের জন্য দু’র্নী’তি দমন অধিদপ্তরকে সাংবিধানিক ম’র্যাদা দিয়ে দু’র্নী’তি দমন কমিশনে উন্নীত করা হয়েছে। আর সেই দুদক যখন সংবিধান বিরোধী কাজ করে অথবা তার দু’র্নী’তিকে আড়াল করার জন্য বা তার কার্যক্রমের মধ্যে কোনো দু’র্নী’তিবাজকে আড়াল করার জন্য যখন সাংবিধানের বিধানের বি’রু’দ্ধে যায় তখন আমাদের উৎকণ্ঠা হয়।

দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিনকে ৫৪ এর (ক) ধারায় চাকরিচ্যুত করার বিষয়টি উল্লেখ করে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, কোনো কারণ দর্শানো নোটিশ ছাড়াই তাকে তাৎক্ষণিক বরখাস্ত করা হয়েছে। অথচ এই ৫৪ ধারাটি নিয়ে হা’ই’কো’র্টে রায়ে বলা হয়েছে, সংবিধান বিরোধী। দুদক অবশ্য আপিল করেছে। কিন্তু যে বিষয়টি বিচারাধীন, সেই বিষয়টিকে পাশ কাটিয়ে তাকে বরখাস্ত করা হলো। এর পরিণামে দুদকের কর্মক’র্তারা সারাদেশে মানববন্ধন ও অ্যাসোসিয়েশন করলো। এতে দুদকের ভাবমূর্তি প্রচণ্ডভাবে ক্ষুণ্ণ হলো। কিন্তু দুদক এই ব্যাপারে গা করলো না। শরীফ উদ্দিনের চাকরিতে পুনর্বহালের জন্য দরখাস্ত করলো, সেটাও মানলো না। সে এখন হা’ই’কো’র্টে গেলো। বিচারাধীন বিষয়ে কথা বলবো না। কিন্তু কী কারণে যে কর্মক’র্তাকে দুদিন আগে অ’তিউত্তম কর্মচারী বলেছেন, তাকে এক কলমের খোঁচায় চাকরিচ্যুত করলেন। কারণ সে এমন কিছু বিষয়ে ত’দ’ন্ত করছিল যার ভিত্তিতে যে বিষয়গুলো এসেছিল, যা জাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

সংসদকে এই বিষয়টি জানানো প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে রাশেদ খানন মেনন বলেন, দুদক সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। তারা যখন এই ধরণের অসাংবিধানিক, অ’নৈ’তিক কার্যক্রম বিষয়টি সংসদের খতিয়ে দেখার দরকার। এই বিষয়ে সংসদীয় ত’দ’ন্ত কমিটি গঠনের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি।

Back to top button