আন্তর্জাতিক

হ’জযাত্রীদের ইমিগ্রেশন নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত জানালেন সৌদি রাষ্ট্রদূত

চলতি বছর হ’জযাত্রীদের সৌদি আরবে প্রবেশের শতভাগ ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া বাংলাদেশেই করা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযু’ক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত এসসা ইউসেফ এসসা দুহাইলান।

তিনি জানান, ম’ক্কা রুট ইনিশিয়েটিভ ফ্রেমওয়ার্ক-কর্মসূচির আওতায় ঢাকার হযরত শাহ’জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকেই শেষ করা হবে এসব কাজ।

সোমবার (২৮ মা’র্চ) সৌদি দূতাবাসের এক সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে দেশটির রাষ্ট্রদূত এ মন্তব্য করেন।

তিনি আরো জানান, ম’ক্কা হ’জ সেবা উন্নয়নের জন্য ভিশন ২০৩০ গ্রহণ করেছে সৌদি আরব। সর্বপ্রথম এই কর্মসূচির আওতায় ২০১৮ সালে নিজেদের হ’জযাত্রী সেবা দেওয়া শুরু করে ইন্দোনেশিয়া ও মালয়শিয়া। ২০১৯ সালে বাংলাদেশ, ভা’রত এবং পা’কিস্তানে শুরু হয় এ সেবা। শুরুতে ৫০ শতাংশ হ’জযাত্রীকে এ সেবার আওতায় আনা হলেও,এ বছর থেকে শতভাগ হ’জযাত্রী এ সুবিধা পাবেন বলে জানান সৌদি রাষ্ট্রদূত।

এসসা ইউসেফ এসসা দুহাইলান জানান, প্রি অ্যারাইভাল ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বিমানবন্দরেই হ’জযাত্রীদের হাতের ১০ আঙুলের ছাপ গ্রহণ করা হবে। সঙ্গে পাসপোর্ট স্ক্যান এবং ছবি তোলা হবে। এরপর ঢাকা হ’জ ক্যাম্পে ইমিগ্রেশন সেরে নেওয়া হবে।

ক’রো’না মহামা’রির কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের হ’জযাত্রীদের সংখ্যা সীমিত রেখেছে সৌদি সরকার। সেই হিসেবে ২০১৯ সালে বাংলাদেশ থেকে হ’জযাত্রীর সংখ্যা প্রায় ১ লাখ ২৬ হাজার। তবে, এ বছর পুরোপুরি হ’জযাত্রা শুরু হবে কিনা এখনো সেই ঘোষণা দেয়নি সৌদি সরকার।

Back to top button