জাতীয়

‘ঘুষ নিলে বদলি করে কী লাভ, ৩ দিনের মধ্যে বরখাস্ত করেন’

ঘুষ নিলে বদলি না করে বরখাস্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন দুদক কমিশনার জহুরুল হক। সোমবার (২৮ মা’র্চ) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত রংপুর টাউন হলে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে তিনি এ কথা বলেন। মূলত রংপুরে সরকারি বিভিন্ন দফতর ও প্রতিষ্ঠানের কর্মক’র্তাদের অনিয়ম-দু’র্নী’তির বিষয়ে গণশুনানির আয়োজন করেছে দু’র্নী’তি দমন কমিশন (দুদক)। এতে ঘুষ ও দু’র্নী’তির বিষয়ে বিস্তর অ’ভিযোগ তোলেন নগরবাসী। এ সময় ঘুষের টাকা ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দেন দুদক কমিশনার।

গণশুনানিতে এক ব্যবসায়ী অ’ভিযোগ করেন, তার প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স করতে কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর রংপুরের পরিদর্শক তপন কুমা’র ফরমের জন্য ১০০ টাকা ঘুষ নেন। সেই সঙ্গে ৩৫ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। ঘুষের ওই ১০০ টাকা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অ’ভিযোগকারীকে ফেরত এবং ৩৫ হাজার টাকা চাওয়ার অ’প’রা’ধে তপন কুমা’রকে ক্ষমা চাইতে বলেন দুদক কমিশনার।

গণশুনানিতে সবচেয়ে বেশি অ’ভিযোগ এসেছে ভূমি অফিসের কর্মক’র্তা-কর্মচারীদের বি’রু’দ্ধে। জমা খারিজ ও নামজারির জন্য ঘুষ নেওয়া, দিনের পর দিন হ’য়’রানির কথা তুলে ধরেন ভুক্তভোগীরা। একইভাবে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের নামে বছরের পর বছর ঘুরিয়ে কাজ না করে দেওয়ার অ’ভিযোগ করেছেন কেউ কেউ। এ নিয়ে জে’লা-উপজে’লা নির্বাচন কর্মক’র্তাকে তিরস্কার করেছেন দুদক কমিশনার। পাশাপাশি চাকরি দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়ে প্রতারণা, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও জে’লা প্রশাসনের বিভিন্ন বিভাগের কর্মক’র্তাদের বি’রু’দ্ধে অ’ভিযোগ এসেছে শুনানিতে।

তবে এসব বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের কোনও প্রশ্ন কিংবা কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়নি। এসব বিষয়ে কথা বলতে অ’পারগতা প্রকাশ করেন দুদকের মহা-পরিচালক এ কে এম সোহেল। অ’ভিযোগ ও দুই পক্ষের বক্তব্য শুনে দুদককে অনুসন্ধান কিংবা মা’ম’লা করার আদেশ দেওয়া হয়নি। গণশুনানিতে প্রধান অ’তিথি ছিলেন দুদক কমিশনার জহুরুল হক, বিশেষ অ’তিথি ছিলেন দুদকের মহা-পরিচালক এ কে এম সোহেল। এসময় দুদকের মহা-পরিচালক এ কে এম সোহেল বলেন, ‘সংবিধানে পরিষ্কার বলা আছে, রাষ্ট্র এমন একটি ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করবে; যাতে কেউই অনুপার্জিত আয় করতে পারবে না।আজকের গণশুনানির উদ্দেশ্য কাউকে ছোট করা নয়, দু’র্নী’তি প্রতিরোধে জনগণকে আরও সচেতন করে গড়ে তোলা।’

এসময় রংপুর সিটি করপোরেশনে জন্ম নিবন্ধন করার নামে তিন জনের কাছ থেকে এক হাজার ২০০ টাকা নিয়ে কাজ না করে দেওয়ার অ’ভিযোগ শুনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন দুদক কমিশনার। তিনি সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মক’র্তা রুহুল আমিনের কাছে জানতে চান, ‘কারা টাকা নিয়ে কাজ করে দেয়নি। তাদের বি’রু’দ্ধে দুই দিনের মধ্যে ব্যবস্থা নিতে হবে।’ ভূমি কর্মক’র্তা মেজবাউল ই’স’লা’মের পিয়ন মো. রানার বি’রু’দ্ধে ১৫ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে ভু’য়া নামজারির কাগজ করে দেওয়ার অ’ভিযোগ শুনে দুদক কমিশনার উপজে’লা ভূমি কর্মক’র্তার কাছে জানতে চান, ‘কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে?’ উত্তরে ভূমি কর্মক’র্তা বলেন, ‘তাদের বদলি করা হয়েছে।’ এতে ক্ষুব্ধ হয়ে দুদক কমিশনার বলেন, ‘তাদের বদলি করে কী লাভ হলো? তারা তো আবারও দু’র্নী’তি করবে, তিন দিনের মধ্যে তাদের বরখাস্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেন।’

এরপর এক ভূমি কর্মক’র্তার বি’রু’দ্ধে ৪০ হাজার টাকা ঘুষ দাবির অ’ভিযোগ করেন নগরীর বাসিন্দা সাইদার রহমান। তার অ’ভিযোগের জবাবে দুদক কমিশনার বলেন, ‘কিছু ব্যক্তি প্রতারণা করে মানুষকে ঠকিয়ে ভিআইপি ও সিআইপি হয়ে মানুষের জমিঘর দখল করেন। এসব ব্যক্তির বি’রু’দ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে আম’রা মা’ম’লা করবো।’

Back to top button