জাতীয়

১৯টি দিন বছরের সমান মনে হয়েছে: হৃদয় মণ্ডলের স্ত্রী’

মুন্সীগঞ্জের বিনোদপুর রামকুমা’র উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞানের শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মণ্ডল কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে রাষ্ট্রের কাছে নিরাপত্তা চেয়েছেন। ধ’র্ম অবমাননার অ’ভিযোগের মা’ম’লায় ১৯ দিন কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন মুন্সীগঞ্জ সদর উপজে’লার বিনোদপুর রামকুমা’র উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মণ্ডল। রবিবার (১০ এপ্রিল) বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটে তিনি মুন্সীগঞ্জ জে’লা কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন।

এর আগে দুপুর সোয়া ১টায় অ’তিরিক্ত জে’লা ও দায়রা জজ মোতাহারাত আক্তার ভূইয়া পাঁচ হাজার টাকা বেল ব’ন্ডে তার জামিন মঞ্জুর করেন।

জামিনের পর প্রতিক্রিয়ায় হৃদয় মণ্ডলের স্ত্রী’ ববিতা হালদার বলেন, ‘১৯টি দিন মনে হয়েছে বছরের সমান। দিনগুলো অনেক ক’ষ্ট ও আতঙ্কে কে’টেছে। ছে’লেমে’য়ে নিয়ে প্রতিটা মুহূর্ত আতঙ্কে আর নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে কাটিয়েছি। জামিনের পর তিনি যেন আবার স্কুলে ফিরতে পারে, কোনও সমস্যা যাতে না হয়, সেই আশা করি।’

হৃদয় মণ্ডলের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহিন মোহাম্ম’দ আমানউল্লাহ বলেন, ‘তার বি’রু’দ্ধে ২৯৫ ও ২৯৫ এর ‘ক’ ধারায় মা’ম’লা করা হয়েছে। যার মধ্যে ২৯৫-ক জামিন অযোগ্য ধারা। যেহেতু জামিন অযোগ্য ধারা, তাই জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের নিম্ন আ’দা’লত জামিন দিতে পারেনি। আম’রা সেই আদেশে সংক্ষুব্ধ হয়ে জে’লা দায়রা আ’দা’লতে সিআর মিস ফাইল করেছি। জে’লা দায়রা জজ আজ ছুটিতে থাকায় অ’তিরিক্ত জে’লা ও দায়রা জজ শুনানি করেছেন। মা’ম’লার গুণগত দিক বিবেচনা করে আম’রা শুনানিতে প্রমাণ করতে পেরেছি, হৃদয় মণ্ডল এমন ঘটনা ঘটনাননি বা অবমাননাকর কোনও কথা বলেননি। মা’ম’লার পারিপার্শ্বিক দিক বিবেচনা করে আ’দা’লত পাঁচ হাজার টাকা বিল ব’ন্ডে তার জামিন মঞ্জুর করেছে। এটা স্থায়ী জামিন, অন্তর্বর্তী জামিন নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশের একজন নাগরিক হিসেবে বলতে চাই, এই অঞ্চলের মানুষ খুবই অসাম্প্রদায়িক ও সহনশীল। সেজন্য কোনও জ’ঙ্গি গোষ্ঠী খা’রা’প কিছু ঘটাতে পারবে না। তবে, তারা চেষ্টা করেছিল। ত’দ’ন্ত করলে সঠিক তথ্য বেরিয়ে আসবে কারা উসকানিমূলক এমন মা’ম’লা দিয়ে পরিস্থিতি ঘোলা করতে চেয়েছিল। হৃদয় মণ্ডল স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাক এটাই চাই। কিছু কুচক্রিমহল কিছু করতেও পারে বলে আশ’ঙ্কা করছি। তবে, আমা’র বিশ্বা’স সম্প্রীতির বাংলাদেশে সেটা সম্ভব না।’

 

Back to top button