জাতীয়

ক্লাসে পড়া না পারায় শিক্ষার্থীদের দিয়ে জুতা পরিষ্কার করালেন প্রধান শিক্ষক

স্বভাবতই শিক্ষকরা মানুষ গড়ার কারিগর। একজন শিক্ষার্থীর প্রকৃত মানুষরূপে গড়ে ওঠার পেছনে বাবা-মা’র চেয়ে শিক্ষকের অবদান কোনো অংশে কম নয়। সোমবার (১১ এপ্রিল) সকালে সাতক্ষীরা সদর উপজে’লার বারপোতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়া না পারায় শিক্ষার্থীদের দিয়ে জুতা পরিষ্কার করানোর অ’ভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বি’রু’দ্ধে। এতে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুকুমা’র সরকার সাতক্ষীরা জে’লা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মক’র্তা বরাবর একটি লিখিত অ’ভিযোগ দিয়েছেন।

অ’ভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে পঞ্চ’ম শ্রেণির বাংলা ক্লাস নেওয়ার জন্য যান বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহানা আক্তার। এ সময় কয়েকজন শিক্ষার্থী পড়া না পারায় শা’রীরিকভাবে নি’র্যা’তন করেন তিনি। এরপর তাদের দিয়ে বিদ্যালয়ে পড়ে থাকা ময়লা জুতাও পরিষ্কার করান। বিষয়টি জানাজানি হলে তোপের মুখে পড়েন ওই শিক্ষক। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে অ’ভিযু’ক্ত প্রধান শিক্ষকের বি’রু’দ্ধে সাতক্ষীরা জে’লা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মক’র্তা বরাবর একটি লিখিত অ’ভিযোগ দেন বিদ্যালয়টির পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুকুমা’র সরকার।

এ বিষয়ে সুকুমা’র সরকার দাবি করেন, ‘অ’ভিযু’ক্ত শিক্ষকের কারণে বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। তার অ’ত্যাচারে বিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী ঝরে গেছে। এ নিয়ে একাধিকবার সংশ্লিষ্ট শিক্ষা দফতরে অ’ভিযোগ করেও কোনও প্রতিকার হয়নি।’

তিনি অ’ভিযোগ করে আরও বলেন, ‘অ’ভিযু’ক্ত শিক্ষকের বি’রু’দ্ধে একাধিক বিভাগীয় মা’ম’লা, জাতীয় দিবস পালন না করা, সময় মতো বিদ্যালয়ে না আসা, স্লিপের টাকা আত্মসাৎসহ বিদ্যালয়ের সরঞ্জাম চু’রি করে বিক্রয় করার অ’ভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও দরিদ্রতার সুযোগ নিয়ে ৯ বছর বয়সী এক শিক্ষার্থীকে দিয়ে নিজের নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজ করান ওই শিক্ষক। এতে করে ওই শিক্ষার্থী স্কুলে আসতে পারে না।’

অ’ভিযু’ক্ত শাহানা আক্তার বলেন, ‘পড়া না পারলে কী মা’রাটা অ’প’রা’ধ? অ’ভিভাবকরা যদি তাদের সন্তানদের শাসন করতে পারেন, তাহলে শিক্ষকরা কেন নয়? আম’রা শিক্ষকরা যদি শিক্ষার্থীদের শাসন করার ক্ষমতা না রাখি তাহলে শিক্ষকতা কীসের জন্য? পড়া না পারায় ওই শিক্ষার্থীদের বেত দিয়ে মা’রা হয়েছে।’

শিক্ষার্থীদের দিয়ে জুতা পরিষ্কার করানো বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ক’রো’নায় বিদ্যালয় দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল। এ কারণে বিদ্যালয়ে পড়ে থাকা নিত্যপণ্য সামগ্রী ময়লা হয়ে গিয়েছিল। এ কারণে শিক্ষার্থীদের দিয়ে বিদ্যালয়ে পড়ে থাকা জুতা পরিষ্কার করানো হয়েছে, যাতে পরে সেটা ব্যবহার উপযোগী হয়।’

 

Back to top button