জাতীয়

মুক্তিযোদ্ধাকে পি’টি’য়ে জ’খ’মের অ’ভিযোগ আ.লীগ নেতার বি’রু’দ্ধে

তুচ্ছ ঘটনায় বরগুনায় এক মুক্তিযোদ্ধাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে লোহার রড দিয়ে পি’টি’য়ে জ’খ’ম করার অ’ভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগ নেতার বি’রু’দ্ধে।

আ’হত মুক্তিযোদ্ধার নাম আবদুল জব্বার। পাঁচ দিন হাসপাতা’লে চিকিৎসা নিয়ে বরগুনার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আ’দা’লতে বুধবার সকালে তার ছে’লে রিপন বাদী হয়ে একটি মা’ম’লার আবেদন করেছেন।

ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্ম’দ মাহবুব আলম মেডিকেল সার্টিফিকেট তলব সা’পেক্ষে ২২ মে আদেশের দিন ধার্য রেখেছেন।আ’সা’মিরা হলেন— বরগুনা সদর উপজে’লার আয়লা পাতাকা’টা গ্রামের মৃ’ত সেকান্দার আলীর ছে’লে আউয়াল, সোহরাব হাওলাদারের ছে’লে হারুন ও আউয়ালের স্ত্রী’ চ’ম্পা। আউয়াল আয়লা পাতাকা’টা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক।

অ’ভিযোগে বলা হয়েছে, আউয়াল গরু দিয়ে ২৩ এপ্রিল সকালে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বারের ছে’লে জহিরুল ই’স’লা’মের ক্ষেতের মুগডাল খাওয়ায়। জহিরুলের ছে’লে ছোটন প্রতিবাদ করতে গিয়ে আউয়ালকে গালমন্দ করেন। এতে আউয়াল অ’পমানবোধ করেন। ওই দিন বিকাল ৫টার দিকে আউয়াল মুক্তিযোদ্ধাকে তার বসতঘরে ডাকেন।

উভ’য়ের মধ্য প্রথমে কথা কা’টাকাটি হয়। একপর্যায়ে আউয়াল উত্তেজিত হয়ে মুক্তিযোদ্ধাকে খু’নের উদ্দেশে লোহার রড দিয়ে মা’থায় আ’ঘাত করেন। এতে মুক্তিযোদ্ধার বাম হাতে মা’রাত্মক জ’খ’ম হয়। হারুন ও চ’ম্পা রড দিয়ে আবদুল জব্বারকে পি’টি’য়ে জ’খ’ম করে।

অ’ভিযোগে আরও বলা হয়েছে, আউয়াল একটি মাটি কা’টার কোদাল নিয়ে আবদুল জব্বারকে খু’ন করার জন্য মা’থার ওপর কোপ দেন। অ’সুস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধা কাত হয়ে মাটিতে পড়ে গেলে সেই কোপ বীর মুক্তিযোদ্ধার বাম পায়ে পড়ে মা’রাত্মক জ’খ’ম হয়।

মুক্তিযোদ্ধা জব্বার বরগুনা জেনারেল হাসপাতা’লে বসে কা’ন্নাজ’ড়ি’ত কণ্ঠে বলেন, আমি ১৯৭১ সালে সম্মুখযু’দ্ধ করে বেঁচে আছি। আজ ৭৫ বছর বয়সে আউয়াল ও তার লোকজন তুচ্ছ ঘটনায় আমাকে হ’ত্যা করার জন্য কু’পিয়ে পি’টি’য়ে মা’রাত্মক জ’খ’ম করে। আমি বরগুনা থা’নায় মা’ম’লা করতে গেলাম। ওসি সাহেব বলেন আপোস হয়ে যেতে।

বরগুনা থা’নার ওসি আলী আহমেদ বলেন, তারা যে মা’ম’লা করতে এসেছিল, তাদের মধ্যে একজন ছিল নাবালক। আমি বলেছি আপস হলে ভালো হয়। মা’ম’লা নিতে চেয়েছি। পরে তারা আর থা’নায় আসেনি।অ’ভিযু’ক্ত আউয়াল বলেন, আমি মুক্তিযোদ্ধাকে মা’রিনি। ছোট ছোট ছে’লেদের সঙ্গে ঝামেলা হয়েছে। আম’রা আপস হতে চাই।

 

Back to top button