জাতীয়

নেতাকর্মীদের বাসায় মহানগর বিএনপি নেতা আমিনুল

পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিনে বিএনপির ভা’রপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় গু’ম-খু’নের শিকার ও অ’সুস্থ নেতাকর্মীদের খোঁজ-খবর নিতে তাদের বাসায় যান ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক।

মঙ্গলবার (৩ মে) ঈদুল ফিতরের নামাজ শেষে আমিনুল হক সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমান বীর উত্তমের মাজারে যান এবং ফাতেহা পাঠ করেন।

এরপর প্রথমে তিনি ঢাকা মহানগর উত্তর রূপনগর থা’না বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন চপলের বাসায় যান এবং তার শা’রীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন। পরে তিনি আওয়ামী সরকারের আমলে গু’ম হওয়া যুবদল নেতা নুর আলম ও পল্লবী থা’না ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক তরিকুল ই’স’লা’ম তারার বাসায় যান এবং তার অসহায় পরিবার-পরিজনের পাশে কিছুক্ষণ অবস্থান করেন ও তাদের খোঁজখবর নেন।

এ সময় আমিনুল হক বলেন, জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নিশ্চিহ্ন করতে আওয়ামী সরকার কর্তৃক দেশব্যাপী বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম-নি’র্যা’তনের স্টিম রোলার চালানো হচ্ছে। সরকারের পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে বলেই তারা দলীয় স’ন্ত্রা’সী ও দুষ্কৃতিকারীদের ওপর ভর করেছে। আইনের শাসন নিরুদ্দেশ হয়ে গেছে বলেই সরকারদলীয় স’ন্ত্রা’সীরা অবিচার-অনাচারে লিপ্ত হয়ে পড়েছে। গণতন্ত্রকে ভুলুণ্ঠিত করার মাধ্যমে জনগণের সব আশা-আকাঙ্ক্ষাকে পদদলিত করে দেশকে একটি ভ’য়ঙ্কর স্বৈরতান্ত্রিক ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রে পরিণত করা হয়েছে।

গু’মের শিকার যুবদল নেতা নুর আলম ও ছাত্রদল নেতা তরিকুল ই’স’লা’ম তারার পরিবারকে সান্ত্বনা দিয়ে আমিনুল হক বলেন, সেদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন জনগণ আওয়ামী সরকারের প্রত্যেকটি অ’পকর্মের হিসাব কড়ায়-গণ্ডায় আদায় করে নেবে।

এ সময় আমিনুল হকের সঙ্গে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য মাহাবুব আলম মন্টু, আমজাদ হোসেন মোল্লাসহ রূপনগর ও পল্লবী থা’না বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Back to top button