জাতীয়

মোবাইল ফোন কেড়ে নিল পাঁচজনের প্রা’ণ

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজে’লার পাগলাপীরে সলেয়াসার বাজার নামক স্থানে বুধবার (৪ মে) রাতে মাইক্রোবাস চাপায় সিএনজিচালিত অটোর চালকসহ পাঁচ জন নি’হ’ত হয়েছেন। আ’হত হয়েছেন আরো তিনজন। আ’হতদের উ’দ্ধা’র করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লে ভর্তি করা হয়েছে। পু’লিশ মাইক্রোবাসটিকে আ’ট’ক করেছে।

তবে চালক পালিয়ে গেছেন জানান পু’লিশ। তাকে গ্রে’প্তা’রের চেষ্টা চলছে।পু’লিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সৈয়দপুর থেকে ছেড়ে আসা মাইক্রোবাসের চালক মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে গাড়ি চালাচ্ছিলেন। তার দায়িত্বহীনতা আর দ্রুতগতিতে গাড়ি চালানোর কারণে এই ম’র্মা’ন্তি’ক দু’র্ঘ’ট’না ঘটেছে। পু’লিশ বলছেন গাড়ি চালানোর সময় মোবাইলে কথা বলেন চালকরা এ কারণে বেশি সড়ক দু’র্ঘ’ট’না ঘটছে। চালকদের গাড়ি চালানোর সময় কথা বলা বন্ধ হলে দু’র্ঘ’ট’না কমে যাবে।

নি’হ’ত পাঁচজনের মধ্যে চারজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- রংপুরের তারাগঞ্জ উপজে’লার হাড়িয়ারকুঠি খাড়ুয়াবাধা গ্রামের আমজাদ হোসেন (৫০), দোহাজারী ছুটহাজীপুর গ্রামের অটোচালক ছেয়াদুল ই’স’লা’ম (৪০), গঙ্গাচড়ার বেতগাড়ি গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম (৪৫) ও তার স্ত্রী’ নাজমা বেগম (৩৫)। অন্য একজনের নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। নি’হ’তদের ম’রদেহ তারাগঞ্জ হাইওয়ে থা’না পু’লিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তবে এ দু’র্ঘ’ট’নায় ঘটনাস্থালে নি’হ’ত তিনজন পুরুষ আর রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লে নেওয়ার পথে আরো দুই না’রী মা’রা যান।প্রত্যক্ষদর্শী আলাল মিয়া জানান, নীলফামা’রীর সৈয়দপুর থেকে একটি মাইক্রোবাস দ্রুতগতিতে পেছন থেকে অটোরিকশাটি চাপা দেয়। আর মাইক্রোবাসের চালকের কানে মোবাইল ফোন ছিল। ফলে মাইক্রোবাস চালক গাড়িটিকে নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেনি। এসময় পেছন থেকে ওই মাইক্রোবাস অটোকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে তিন যাত্রী মা’রা যান।

এ বিষয়ে তারাগঞ্জ হাইওয়ে থা’না পু’লিশের ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মাহবুব মোর্শেদ জানান, নি’হ’তদের মধ্যে দুজনের ম’রদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আ’হতদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লে ভর্তি করা হয়েছে। আ’হত ৪ জনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লে নেওয়ার সময় আরো দুই না’রী মা’রা যান। এদের মধ্যে অন্য দুজনের অবস্থাও আশ’ঙ্কাজনক বলে জানা যায়।

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. সামসুল ই’স’লা’ম জানান, হাসপাতা’লে আনার পথে আরো দুই না’রী মা’রা গেছেন। আ’হত তিনজনকে ভর্তি করা হয়েছে। পাগলাপীরে মাইক্রোবাস-সিএনজির চালিত অটোর সং’ঘ’র্ষের ঘটনায় আ’হত দুজনের অবস্থা আশ’ঙ্কাজনক কারণ তাদের দুজনের মা’থায় আ’ঘাত লেগেছে।

অন্যদিকে, মাইক্রোবাস চাপায় সিএনজির চালিত অটোর যাত্রী নি’হ’তের ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ জনতা রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়ক এক ঘণ্টা অবরোধ করে বি’ক্ষো’ভ করেছেন। এতে মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এক ঘণ্টা চেষ্টার পর পু’লিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পু’লিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে আরো জানা যায়, রংপুরের গংগাচড়া উপজে’লার সলেয়াসার বাজারের কাছে একটি অটোরিকশাকে পেছন থেকে একটি সৈয়দপুর থেকে ছেড়ে আসা মাইক্রোবাস চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনজন নি’হ’ত ও পাঁচজন আ’হত হন। এলাকাবাসী তাদের উ’দ্ধা’র করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লে নিয়ে গেলে সেখানে আরো দুই না’রী মা’রা যান। মাইক্রোবাসটি নীলফামা’রীর সৈয়দপুর থেকে রংপুরের দিকে আসছিল। অন্যদিকে অটোরিকশাটি তারাগঞ্জের দিকে রংপুরের দিকে যাচ্ছিল।

রংপুরের গঙ্গাচড়া থা’নার ওসি দুলাল হোসেন জানান, মাইক্রোবাসের চালক মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে গাড়ি চালাচ্ছিলেন। তার দায়িত্বহীনতার কারণেই দু’র্ঘ’ট’না ঘটেছে। মাইক্রোবাসটিকে আ’ট’ক করা হলেও ড্রাইভা’র পালিয়ে গেছে। তাকে আ’ট’কের চেষ্টা চলছে। তবে তাদের বি’রু’দ্ধে থা’নায় একটি ইউডি মা’ম’লা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নি’হ’তের পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো কেউ মা’ম’লা করেনি।

Back to top button