জাতীয়

আ. লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনসহ, ৬টি পৌরসভা, ৩টি উপজে’লা পরিষদ ও ১৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে পদপ্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে আওয়ামী লীগ।

শুক্রবার (৬ মে) ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে এসে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাশী। ঈদের ছুটির আ’মেজ শেষ না হওয়ায় মানুষের ভিড় কিছুটা কম ছিল এদিন।মনোনয়ন ফরম উত্তোলন ও জমাদান কার্যক্রম চলবে ১১ মে পর্যন্ত। ১৩ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় প্রাথীদের নাম চুড়ান্ত করবেন।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তফসিল অনুযায়ী, আগামী ১৫ জুন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে কুসিক নির্বাচন হবে।প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর কাজী হাবিবুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন কমিশনের অধীন এটিই প্রথম নির্বাচন হতে যাচ্ছে।

ওইদিন ইসি সচিব মো. হু’মায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, রিটার্নিং কর্মক’র্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ১৭ মে। মনোনয়নপত্র বাছাই ১৯ মে ও প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৬ মে, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ মে এবং ভোটগ্রহণ ১৫ জুন।

জানা গেছে, ২০১১ সালে কুমিল্লা পৌরসভা ও সদর দক্ষিণ দুটি পৌরসভাকে একীভূত করে গঠন করা হয় কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নামে নতুন সিটি করপোরেশন।কুমিল্লা সিটি করপোরেশন ২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত কুমিল্লা সিটির প্রথম নির্বাচনে বিএনপি থেকে পদত্যাগ করে নাগরিক সমাজের ব্যানারে একবার এবং ২০১৭ সালের ৩০ মা’র্চ বিএনপির মনোনয়নে দ্বিতীয়বার মেয়র নির্বাচিত হন কুমিল্লা দক্ষিণ জে’লা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মো. মনিরুল হক সাক্কু।

২০১২ সালের নির্বাচনে সাক্কুর কাছে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা প্রয়াত আফজল খান পরাজিত হন। ২০১৭ সালে তার মে’য়ে আঞ্জুম সুলতানা সীমা’ও হারেন সাক্কুর কাছে। সীমা বর্তমানে সংরক্ষিত না’রী আসনের সংসদ সদস্য।২০১৭ সালের নির্বাচনে বিএনপি নেতা মনিরুল হক সাক্কু দ্বিতীয়বারের মতো এ সিটিতে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এ সিটিতে সে সময় মোট ভোটার ছিল ২ লাখ ৭ হাজার ৫৬৬ জন। এ বছর ভোটার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৩২ হাজার ৬৩০ জন।

Back to top button