রাজনীতি

‘সয়াবিন তেল এখন সোনার হরিণ’

আকস্মিকভাবে সয়াবিন তেলের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধিতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ই’স’লা’ম আলমগীর।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব এ প্রতিবাদ জানান।

ফখরুল বলেন, ‘বাণিজ্য সচিবের সঙ্গে মিল মালিকদের বৈঠকের পর এক লাফে প্রতি লিটারে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম ৩৮ টাকা, খোলা সয়াবিন তেলের মূল্য ৪৪ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং প্রতি লিটারে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম ১৯৮ টাকা নির্ধারণ করা সরকারের চরম গণবিরোধী নীতিরই বহিঃপ্রকাশ। সয়াবিন তেল এখন সোনার হরিণ। এই সরকার যে জনগণের শক্রপক্ষ সয়াবিন তেলের দাম বৃদ্ধিতে- তা আবারো প্রমাণিত হলো।’

‘ঈদুল ফিতরের প্রাক্কালে বাজার থেকে সয়াবিন তেল উধাও এবং গতকাল সয়াবিন তেলের দাম বৃদ্ধি অ’ভিনব নজিরবিহীন ঘটনা- যা জনগণকে চরম ভোগান্তিতে ফেলেছে। ক্ষমতাসীন মহলের সিন্ডিকে’টের দৌরাত্মেই বাজার থেকে সয়াবিন তেল গায়েব করে এখন চরম দাম বৃদ্ধির মাধ্যমে মধ্যম ও স্বল্প আয়ের মানুষকে গচ্চা দিতে হচ্ছে অ’তিরিক্ত অর্থ। এই ঘটনায় জনগণকে চরম হ’য়’রানির মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘ভোজ্যতেল হিসেবে সয়াবিন তেল অ’ত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি পণ্য। প্রতিটি পরিবারে রন্ধন কাজের জন্য এটি একটি অ’ত্যাবশ্যকীয় উপকরণ। সুতরাং নিত্যপ্রয়োজনীয় এই পণ্যকে সিন্ডিকে’টের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করে শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়াই প্রধান লক্ষ্য। ভোটারবিহীন সরকারকে জনগণের কাছে কোনো জবাবদিহি করতে হয় না বলেই সয়াবিন তেলের মতো একটি প্রয়োজনীয় পণ্যকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সেটি জনগণের ক্রয়ক্ষমতা থেকে দূরে ঠেলে চরম দুর্ভোগের মধ্যে ফেলা হয়েছে।’

‘সরকার নিজেদের গোষ্ঠীর স্বার্থে সয়াবিন তেলের মূল্যবৃদ্ধি করেছে। অথচ আশেপাশে কোনো দেশেই ভোজ্যতেলের মূল্যবৃদ্ধি পায়নি। একমাত্র বাংলাদেশের বর্তমান গণধিকৃত সরকারই জনগণের স্বার্থের তোয়াক্কা করে না। এরা নি’পীড়ন-নি’র্যা’তনের ভ’য়ার্ত পরিবেশ সৃষ্টি করে জনগণকে ব’ন্দি করে রাখতে চায়।’

ফখরুল বলেন, ‘আমি সয়াবিন তেলের সীমাহীন মূল্যবৃদ্ধির এই গণবিরোধী সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে ভোজ্যতেল সয়াবিনের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জো’র দাবি করছি।’

Back to top button