জাতীয়

বাবার বকেয়া ৪৫০ টাকার জন্য ছে’লেকে গাছে বেঁধে নি’র্যা’তন, গ্রে’প্তা’র ৩

বাবার কাছে বকেয়া ৪৫০ টাকার জন্য ছে’লেকে গাছে বেঁধে নি’র্যা’তনের অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অ’ভিযু’ক্ত তিনজনকে গ্রে’প্তা’র করেছে পু’লিশ। কুমিল্লার বুড়িচং উপজে’লার ভা’রত সীমান্তবর্তী ভৈরবপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (৬ মে) এ ঘটনার ছবি ও ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এদিন রাতে সাহেদ হোসেন ওরফে শান্ত নামের ওই কি’শোরের বাবা ইউসুফ মিয়া চারজনকে আ’সা’মি করে বুড়িচং থা’নায় একটি মা’ম’লা দায়ের করেন। পরে রাতেই তিনজনকে গ্রে’প্তা’র করে পু’লিশ। তারা হলেন- ঘটনার মূলহোতা নাহিদুল ই’স’লা’ম (২০), নাজমুল হোসেন (২৩), জসিম উদ্দিন (২৭)।

বুড়িচং থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মাকছুদ আলম বলেন, অ’ভিযু’ক্তদের গ্রে’প্তা’রে পু’লিশের একটি টিম গঠন করে তাদের তিনজনকে গ্রে’প্তা’র করেছি। বাকি একজনকে গ্রে’প্তা’রে মাঠে কাজ করছে আমাদের টিম। শিগগিরই তাকে গ্রে’প্তা’র করা হবে। শনিবার (৭ মে) তাদের আ’দা’লতে হাজির করা হবে।

স্থানীয় ও পু’লিশ সূত্রে জানা গেছে, ভৈরবপুর গ্রামের ইউসুফ মিয়া কিছুদিন আগে একই গ্রামের দুলু মিয়ার ছে’লে নাহিদুলের কাছ থেকে একটি খাট ক্রয় করেন। এতে বকেয়া ছিল ৪৫০ টাকা। ঈদের কয়েকদিন আগে বকেয়া টাকার জন্য তাদের বাড়িতে গিয়ে গালিগালাজ করে নাহিদুল। এতে সপ্তাহখানেকের মধ্যে টাকা পরিশোধের কথা বলেন ইউসুফ। এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে কথা কা’টাকাটি ও একপর্যায়ে হাতাহাতি হয়।

পরে ঈদের দিন বিকেলে ইউসুফের ছে’লে শান্তকে অ’স্ত্র ঠেকিয়ে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায় নাহিদুল ও তার সঙ্গীরা। শান্তকে গাছের সঙ্গে বেঁধে অমানবিক নি’র্যা’তন করে তারা। এ ঘটনার ভিডিও-ছবি শুক্রবার থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়।

শান্তর বাবা ইউসুফ বলেন, ঈদের দিন শান্ত ঘুরতে বের হলে ফার্নিচার ব্যবসায়ী নাহিদুল, তার ভাই নাজমুল ও সঙ্গে থাকা আনোয়ার ও জসিম শান্তকে তার বন্ধুদের সামনে থেকে অ’স্ত্র ঠেকিয়ে টানা-হেঁচড়া করে নাজমুলের বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে গাছের সঙ্গে বেঁধে তাকে অমানবিক নি’র্যা’তন করে। এ সময় স্থানীয় লোকজন মা’রধরের ভিডিও ও ছবি তুলে রাখে। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সচিব ও গ্রাম পু’লিশ সেখান থেকে শান্তকে উ’দ্ধা’র করে।

 

Back to top button