জাতীয়

মানুষের আয় বাড়ায় ঈদে হাট-বাজারে বেশি বেচাকেনা হয়েছে

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, আমাদের হিসেবে মা’থাপিছু আয় ঠিক আছে। আয় বৃদ্ধিতে এবার ঈদে হাট-বাজারে বেশি বেচাকেনা হয়েছে। গ্রামেও প্রত্যেকের হাতে মোবাইল, কেউ খালি পায়ে নেই। রিয়াল (প্রকৃত) আয় বেড়েছে। গত অর্থবছরে ছিল ২ হাজার ৫৯১ ডলার, সেটাও ঠিক আছে। আম’রা যে প্রাক্কলন করেছি ২ হাজার ৮২৪ মা’র্কিন ডলার, এটাও ঠিক আছে।

আজ মঙ্গলবার (১০ মে) রাজধানীর শেরে-বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভা শেষে এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গ্রামে মূল্যস্ফীতি বেশি, কারণ গ্রামে ডিমান্ড বেশি। শ্রমিকের ঘাটতি আছে। গার্মেন্টসগুলো না’রী শ্রমিক পাচ্ছে না। বৈষম্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বৈষম্য আছে, পৃথিবীর সব দেশেই এটা আছে। তবে ধীরে ধীরে বৈষম্য কমে আসবে।

এদিকে এ বছর দেশে মা’থাপিছু আয় ২৩৩ ডলার বেড়ে ২ হাজার ৮২৪ মা’র্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। গত বছর মা’থাপিছু আয় ছিল ২ হাজার ৫৯১ ডলার।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, গত বছরের শেষে মানুষের মা’থাপিছু আয় ছিল ২৫৯১ ডলার বা ২ লাখ ১৯ হাজার ৭৩৮ টাকা। এই অর্থবছর শেষে সেটি হবে ২৮২৪ ডলার বা ২ লাখ ৪১ হাজার ৪৭০ টাকা। এর আগের অর্থবছর ২০১৯-২০-এ মা’থাপিছু আয় ছিল ২৩২৬ ডলার বা ১ লাখ ৯৭ হাজার ১৯৯ টাকা।

 

Back to top button