রাজনীতি

ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’ না যেতেই আসছে ‘করিম’

সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় “অশনি”র প্রভাবে ভা’রতের উপকূলীয় এলাকায় প্রবল ঝড়-বৃষ্টি হচ্ছে। বাংলাদেশেও এর সামান্য প্রভাব দেখা গেছে। ঠিক তখনই ভা’রতীয় উপকূলে নতুন ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টির খবর জানালো যু’ক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা।গত রবিবার ৮ মে ভা’রত মহাসাগরের উত্তর এবং দক্ষিণে ওই জোড়া ঘূর্ণিঝড়ের ছবি নাসার উপগ্রহ চিত্রে ধ’রা পড়ে। ‘‘অশনি’’র পাশাপাশি অন্য যে ঘূর্ণিঝড়ের ছবি নাসা তুলেছে সেটির নাম ‘‘করিম’’।

এদিকে ‘‘করিম’’-কে প্রথম শ্রেণির হারিকেন ঝড় হিসেবে ব্যাখ্যা করেছে নাসা। যদিও এটি এখনও সমুদ্রের ভেতরে রয়েছে। তবে নাসার ব্যাখ্যা অনুযায়ী ‘‘অশনি’’ যেখানে নিরক্ষরেখার উত্তরে রয়েছে, সেখানে ‘‘করিম’’কে দেখা গিয়েছে নিরক্ষরেখার দক্ষিণে।

তবে ছবি দেখে অনুমান করা হচ্ছে, শক্তির দিক থেকে ‘‘অশনি’’র থেকে কিছুটা বেশি শক্তিশালী এই দ্বিতীয় ঘূর্ণিঝড়টি। ‘‘করিম’’ ভা’রত মহাসাগর থেকে ‘‘অশনি’’র পিছু পিছু বঙ্গোপসাগরে প্রবেশ করবে কি-না সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি। তবে এই দ্বিতীয় ঘূর্ণিঝড়টির ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা নিয়ে একটি পূর্বাভাস দিয়েছে।

এ বিষয়ে নাসা জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়টি শক্তিশালী হলেও এর হাওয়ার ঘূর্ণন উল্টোদিকে। নাসা জানিয়েছে এই ঘূর্ণি একটু তীব্র সামুদ্রিক হাওয়ার মুখোমুখি হলে শক্তিক্ষয় করতে পারে। সেক্ষেত্রে স্থলভাগে প্রবেশ করলেও তা থেকে বড় ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা কম। তবে ঘূর্ণিঝড়টি বর্তমানে যেখানে রয়েছে তার কাছেই একটি ছোট্ট দ্বীপ কোকোজ আইল্যান্ড। মাত্র ৬০০ জন বাসিন্দার ওই দ্বীপে ‘‘করিম’’ এর প্রভাবে কিছুটা ক্ষতি হলেও হতে পারে।

 

Back to top button