জাতীয়

তেল মজুদে তেলেসমাতি, খুলনায় সোয়া ২ লাখ লিটার উ’দ্ধা’র

খুলনায় ভোজ্য তেলের অ’বৈ’ধ মজুদের অ’ভিযোগে তিন প্রতিষ্ঠানকে জ’রিমানা করা হয়েছে। খুলনা রে’ব-৬-এর ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লত জে’লা প্রশাসনের সহযোগিতায় অ’ভিযান চালায়। এ সময় তিন প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৬০ হাজার টাকা জ’রিমানা আদায় করেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বেলা সোয়া ১টা পর্যন্ত এ অ’ভিযান চালানো হয়।

অ’ভিযান পরিচালনা করেন খুলনা জে’লা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক।রে’ব জানায়, সকাল ১০টার দিকে এ অ’ভিযান শুরু হয়। অ’ভিযানে দুই লাখ ২২ হাজার ৬২০ হাজার লিটার ভোজ্য তেল উ’দ্ধা’র করে রেব। এর মধ্যে সাহা ট্রেডার্সে ৩১ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন ও ৬৩ হাজার ৩০০ লিটার পাম অয়েল মজুদ পাওয়া যায়। এর দায়ে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী দিলিপ কুমা’র সাহাকে ৯০ হাজার টাকা জ’রিমানা করা হয়। সোনালী এন্টারপ্রাইজে ২৬ হাজার ৭৮০ লিটার সয়াবিন ও ৩১ হাজার ৮০০ লিটার পাম অয়েল মজুদের অ’ভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী প্রদীপ সাহাকে ৩০ হাজার টাকা জ’রিমানা করা হয়।

এর আগে রণজিৎ বিশ্বা’স অ্যান্ড সন্সে ৯ হাজার ৫৮০ লিটার সয়াবিন ও ৫৯ হাজার ৫৬০ লিটার পাম অয়েল মজুদের অ’ভিযোগে ৪০ হাজার টাকা জ’রিমানা আদায় করা হয়।এদিকে গোডাউন মালিকদের দাবি, চলমান ব্যবসার প্রয়োজনে তেল মজুদ করা হয়েছে। মূল্যবৃদ্ধির জন্য করা হয়নি। বর্তমানে লোকসান দিয়ে তারা সুপার পাম তেল বিক্রি করছেন।

রে’ব-৬-এর পু’লিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাাম জানান, কৃষি বিপণন মজুদ আইন অনুযায়ী ৩০ মেট্রিক টনের বেশি তেল মজুদ করার সুযোগ নেই। গোডাউনগুলো অ’তিরিক্ত তেলা পাওয়া গেছে। তাদের এ বিষয়ে সতর্ক ও জ’রিমানা করা হয়েছে। জনস্বার্থে রে’বের এ ধরনের অ’ভিযান অব্যাহত থাকবে।

খুলনা জে’লা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক বলেন, জনস্বার্থে ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লত পরিচালনা করা হচ্ছে। কেউ যাতে ভোজ্য তেল মজুদ করে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করতে না পারে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে।

Back to top button