জাতীয়

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক নিজেই যখন সরকারি চাল চো’র!

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজে’লায় ২০০ কেজি সরকারি চাল কালোবাজারে বিক্রির করতে নেওয়ার সময় হাতে নাতে আ’ট’ক করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা। এ ঘটনায় পু’লিশ অ’ভিযু’ক্ত ২ জনকে গ্রে’প্তা’র করেছে।

গ্রে’প্তা’রকৃতরা হলো কবিরহাট উপজে’লার কাছারিরহাট বাজার এলাকার খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক মো. হাফিজ উল্যাহ (৩২) ও চাল বহনকারী রিকশা চালক দেলোয়ার হোসেন (৩৮)।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে কবিরহাট উপজে’লার কাছারিরহাট বাজারে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক হাফিজ উল্যাহর দোকান থেকে চার বস্তা চাল রিকশায় নিয়ে যাওয়ার পথে স্থানীয়রা রিকশা চালককে আ’ট’ক করে। এরপর রিকশাচালক দেলোয়ারকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান কাছারিরহাট বাজারের পরিবেশক হাফিজ উল্যাহর দোকান থেকে চালগুলো পাশের ইলিয়াস নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন। এ সময় স্থানীয় লোকজন চালের বস্তাগুলোসহ রিকশাচালককে আ’ট’ক করে থা’নায় খবর দেন।

এ বিষয়ে কবিরহাট থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মোঃ রফিকুল ই’স’লা’ম বিডি২৪লাইভকে জানান, সরকারি চাল পাচারের চেষ্টার অ’ভিযোগে কবিরহাট উপজে’লা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. সালাউদ্দিন বৃহস্পতিবার বিকেলে থা’নায় মা’ম’লা করেন। ওই মা’ম’লায় কাছারিরহাট খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক মো. হাফিজ উল্যাহ (৩২) ও চাল বহনকারী রিকশার চালক দেলোয়ার হোসেনকে আ’সা’মি করা হয়েছে। সরকারি চাল বিক্রির এমন খবর পেয়ে রিকশাচালক ও চাল জ’ব্দ করে থা’নায় নিয়ে আসে পু’লিশ। শুক্রবার সকালে গ্রে’প্তা’রকৃত আ’সা’মিদের ওই মা’ম’লায় বিচারিক আ’দা’লেতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কবিরহাট উপজে’লা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. সালাউদ্দিন বিডি২৪লাইভকে বলেন, জ’ব্দ করা চালগুলো সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল বলে প্রাথমিক ত’দ’ন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে থা’নায় মা’ম’লা করা হয়েছে।

Back to top button