জাতীয়

প্রে’মিকের বাড়িতে অবস্থান নেওয়া সেই তরুণী গ্রে’প্তা’র

বিয়ের দাবিতে বরগুনায় প্রে’মিকের বাড়িতে অবস্থান নেওয়া জামালপুরের সেই তরুণীকে গ্রে’প্তা’র করেছে পু’লিশ। এরপর তাকে আ’দা’লতে পাঠানো হয়।

শুক্রবার (১৩ মে) সকালে বরগুনার বেতাগীর চান্দখালীর কাঠপট্টি এলাকার প্রে’মিক মাহমুদুল হাসানের বাড়ি থেকে তাকে গ্রে’প্তা’র করা হয়।বিষয়টি ঢাকা পোস্ট’কে নিশ্চিত করেছেন বেতাগী থা’না পু’লিশের ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) শাহআলম হাওলাদার।তিনি বলেন, বিয়ের দাবিতে চান্দখালির মাহমুদুল হাসানের বাড়িতে ১৫ দিন ধরে অবস্থান নেন বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া ওই তরুণী। আজ সকালে সকালে আ’দা’লতের নির্দেশে তাকে গ্রে’প্তা’র করা হয়। এরপর তাকে আ’দা’লতে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১০ মে) প্রে’মিক মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন জামালপুর থেকে আসা ওই তরুণীর বি’রু’দ্ধে আ’দা’লতে অ’ভিযোগ দেন। অ’ভিযোগ আমলে নিয়ে বেতাগী থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তাকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন বরগুনার মুখ্য বিচারিক হাকিম আ’দা’লতের বিচারক মাহবুব আলম।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ এপ্রিল বরগুনার চান্দখালীর কাঠপট্টি এলাকার মাহমুদ হাসানের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন জামালপুরের ওই তরুণী। তিনি অবস্থান নেওয়ার পর থেকেই মাহমুদ ও তার পরিবারের সদস্যরা বাসায় তালা লাগিয়ে গা-ঢাকা দেন।

এরপর স্থানীয়দের সহায়তায় বাড়ির তালা ভে’ঙে বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেন ওই তরুণী। এর ১০ দিন পর প্রে’মিক মাহমুদের বাবা মোশাররফ হোসেন তরুণীর আগের স্বামীকে তালাক দেওয়ার কাগজ দেখানোর শর্তে হাসানের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি হন। কিন্তু ওই তরুণী তালাকের কাগজ দেখাতে ব‍্যর্থ হন।

এরপর গত ১০ মে মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন ওই তরুণীর বি’রু’দ্ধে আ’দা’লতে অ’ভিযোগ দেন। পরে মঙ্গলবার (১০ মে) দুপুরে বরগুনার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আ’দা’লতের বিচারক মাহবুব আলম তরুণীর বি’রু’দ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে পু’লিশকে নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী সাইমুল ই’স’লা’ম রাব্বি ১০ মে ঢাকা পোস্ট’কে বলেছিলেন, ওই তরুণীর স্বামী ও সন্তান আছে। তিনি বর্তমান স্বামীকে ডিভোর্স না দিয়েই আরেকজনকে বিয়ের দাবি নিয়ে ওই বাড়িতে গেছেন। তিনি একটি পরিবারকে অ’ব’রু’দ্ধ করে তাদের বাড়িতে অবস্থান করছেন।বিষয়টি আ’দা’লতের নজরে এনে আবেদন করেছিলাম। আ’দা’লত তার বি’রু’দ্ধে জাস্টিস অব দ্য পিস আইনে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বেতাগী থা’না পু’লিশের ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

Back to top button