জাতীয়

স্ত্রী’র প’র’কিয়ার কারণেই খু’ন হন নজরুল

জে’লার পার্বতীপুর ইউনিয়নের রহনপুর-আড্ডা আঞ্চলিক সড়কের পাশ থেকে দুদিন আগে উ’দ্ধা’র করা হয় নজরুল ই’স’লা’ম (৬০) নামে স্থানীয় এক ব্যক্তির ম’রদেহ। উ’দ্ধা’রের সময় ম’রদেহের পাশে পাওয়া যায় প্লাস্টিকের দড়ি।

এ ঘটনায় একটি হ’ত্যা মা’ম’লা দায়ের হয়।
গোমস্তাপুর উপজে’লার এ ঘটনায় র’হ’স্য উদঘাটনে মাঠে নামে পু’লিশ। হ’ত্যাকা’ণ্ডের দুদিন পর শুক্রবার (১৩ মে) আসল র’হ’স্য উদঘাটন হয়। জানা যায়, স্ত্রী’র প’র’কীয়ার কারণে হ’ত্যার শিকার হন নজরুল।

মূলত ম’রদেহের সঙ্গে থাকা প্লাস্টিককে সূত্র ধরে ত’দ’ন্ত করতে থাকে পু’লিশ। হ’ত্যাকা’ণ্ডের এ ঘটনায় গ্রে’প্তা’র করা হয়েছে নজরুলের স্ত্রী’ লালবানু ও তার প’র’কীয়া প্রে’মিক শাকিলকে। শুক্রবার তাদের স্থানীয় আ’দা’লতে তোলা হয়। পরে আ’দা’লতের বিচারক তাদের জে’লহাজতে পাঠান।

পু’লিশ জানায়, নজরুল পার্বতীপুর ইউনিয়নের এনায়েতপুর গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। তার বাবার নাম রুস্তম আলী (মৃ’ত)। নজরুলের স্ত্রী’ লালবানু নিজ বাড়িতেই চায়ের দোকান করেছিলেন। সে সুবাদে পাশের ইট ভাটার ম্যানেজার শাকিল তার দোকানে আসা-যাওয়া করতেন। দীর্ঘদিন যাতায়াতের কারণে লালবানু ও তার মধ্যে প’র’কীয়া স’ম্প’র্ক গড়ে ওঠে। চলতি বছর মা’র্চে এনায়েতপুর বাজার থেকে নিজ নামে মোবাইল ও সিম কিনে লালবানুকে দেন শাকিল। এতে তাদের মধ্যে স’ম্প’র্ক আরো গভীর হয়ে ওঠে। বিষয়টি টের পেয়ে নজরুল ই’স’লা’ম তার স্ত্রী’কে মা’রধর করেন। শাকিলকেও গালিগালাজ করেন। নিজেদের কীর্তি প্রকাশ পাওয়ায় নজরুলকে হ’ত্যার পরিকল্পনা সাজান লালবানু ও শাকিল।

বুধবার (১১ মে) হ’ত্যাকা’ণ্ডের পর নজরুলের ম’রদেহ ফেলে রাখা হয় উপজে’লার পার্বতীপুর ইউনিয়নের রহনপুর-আড্ডা আঞ্চলিক সড়কের নজরপুর নামক স্থানে রাস্তার পাশে। সেখান থেকে পু’লিশ ম’রদেহ উ’দ্ধা’র করলে গোমস্তাপুর থা’নায় একটি হ’ত্যা মা’ম’লা দায়ের করেন নজরুলের ভাই আশরাফুল হক। পরে নজরুলের স্ত্রী’ লালবানু ও শাকিলসহ আরো ছয়জনকে আ’ট’ক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের পর লালবানু ও শাকিলকে মূল হ’ত্যাকারী হিসেবে চিহ্নিত করে পু’লিশ। পরে তারা ঘটনার সম্পৃক্ততার ব্যাপারে স্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে গোমস্তাপুর থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) দিলিপ কুমা’র দাস জানান, নজরুলকে শ্বা’সরোধ করে হ’ত্যা করা হয়। পরে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে তার ম’রদেহ নজরপুর এলাকার রাস্তার পাশে ফেলে রাখা হয়। লালবানু ও শাকিলকে আ’দা’লতের মাধ্যমে জে’লহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Back to top button