জাতীয়

পি কে হালদারকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হবে

ভা’রতের পশ্চিমবঙ্গে গ্রে’প্তা’র হওয়া দেশের আর্থিক খাতের অন্যতম বড় কেলেঙ্কারির নায়ক প্রশান্ত কুমা’র (পি কে) হালদারকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করবে দু’র্নী’তি দমন কমিশন (দুদক)।

শনিবার (১৪ মে) সন্ধ্যায় দুদকের চেয়ারম্যান মোহাম্ম’দ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ সংবাদমাধ্যমকে এ কথা জানিয়েছেন।তিনি বলেন, ভালোই লাগল যে, একটা আ’সা’মি ধ’রা পড়ল। এখন আম’রা তাকে দ্রুত দেশে আনার চেষ্টা করব। এটাই আমাদের একমাত্র কাজ।

এর আগে শনিবার সকালে ভা’রতের পশ্চিমবঙ্গে অ’ভিযান চালিয়ে অ’বৈ’ধ সম্পদ অর্জনের অ’ভিযোগ মা’থায় নিয়ে বিদেশে পাড়ি জমানো এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) পি কে হালদার, তার ভাই ও স্ত্রী’কে গ্রে’প্তা’র করা হয়।

এদিকে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের হাজার কোটি টাকা লোপাট মা’ম’লার আ’সা’মি প্রশান্ত কুমা’র হালদারকে (পি কে হালদার) দেশে ফেরাতে তিন থেকে ছয় মাস লাগবে বলে জানিয়েছেন দু’র্নী’তি দমন কমিশনের প্রধান আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।তিনি বলেন, ভা’রতের সঙ্গে বাংলাদেশের ব’ন্দি বিনিময় চুক্তি অনুযায়ী কিছু আনুষ্ঠানিকতা রয়েছে। সেসব আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে তিন থেকে ছয় মাসের মতো সময় লাগতে পারে। তার পরই পি কে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে।

দেশে ফেরানো মাত্রই পি কে-র বিচার শুরু হবে জানিয়ে দুদক আইনজীবী আরও বলেন, ভা’রতে গ্রে’প্তা’র হওয়ায় আমাদের জন্য কাজটি সহ’জ হয়েছে।খুরশীদ আলম আরও বলেন, বাংলাদেশে ফেরানোর পর তাকে আ’দা’লতে তোলা হবে এবং বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে। এ ছাড়া যেসব ত’দ’ন্ত অসম্পূর্ণ রয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে সেসব ত’দ’ন্তকাজ সম্পূর্ণ করা সম্ভব হবে।

পি কে হালদার ছাড়াও ১০ হাজার ২০০ কোটি টাকা পাচারের কুশীলব কারা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে দুদকের এই আইনজীবী বলেন, পি কে হালদারকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে দুদক তা শিগগিরই জানতে পারবে।এর আগে পি কে হালদারের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও আত্মীয়স্বজনের নামে আরও বেশ কয়েকটি বাড়ির সন্ধান পায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। আর গতকাল শুক্রবার (১৩ মে) গ্রে’প্তা’র করা হয় তার ভাগনে প্রা’ণেশ হালদারকে।

পি কে হালদারের বি’রু’দ্ধে প্রায় ৩ হাজার ৬০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অ’ভিযোগ রয়েছে। বেশ কিছু আর্থিক প্রতিষ্ঠানে দায়িত্ব পালনকালে এই অর্থ পাচার করেছিলেন তিনি। বাংলাদেশ পু’লিশের এনসিবি ইন্টারপোল শাখার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২১ সালের ৮ জানুয়ারি পি কে হালদারের বি’রু’দ্ধে রেড নোটিশ জারি করে ইন্টারপোল।

Back to top button